প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৭ প্রকল্পে মিলেছে সৌদি ঋণ, পাইপ লাইনে ৪ প্রকল্প

বাংলা নিউজ : সাতটি বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে ২ শতাংশ সুদে মোট ২৭ দশমিক ১ কোটি ডলার ঋণ দিয়েছে সৌদি আরব। প্রতি ডলার ৮৩ টাকা ধরে বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২ হাজার ২৪৯ কোটি ৩ লাখ টাকা।

সৌদি ঋণে বাস্তবায়নের জন্য আরও চারটি প্রকল্প পাইপ লাইনে রয়েছে। সমপরিমাণ সুদে নতুন চারটি প্রকল্পে দ্রুত সময়ে সৌদির সঙ্গে ঋণচুক্তি সই হবে বলে জানায় অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি)।

ইআরডি’র সহকারী প্রধান আসাদুল হক বাংলানিউজকে বলেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে সাতটি প্রকল্পে সৌদি ঋণ মিলেছে। আরও চারটি প্রকল্প পাইপ লাইনে রয়েছে। আশা করছি এগুলোতেও সৌদি ঋণ মিলবে। দ্রুত সময়ে নতুন চারটি প্রকল্পে সৌদির সঙ্গে ঋণচুক্তি সই হবে।

সৌদি ঋণ মিলেছে যে সাতটি প্রকল্পে
ইআরডি সূত্র জানায়, নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে যান চলাচলের জন্য পুরোপুরি খুলেছে মগবাজার-মৌচাক-মালিবাগ সমন্বিত ফ্লাইওভার। এই ফ্লাইওভার নির্মাণে সাড়ে ৬ কোটি ডলার ঋণ দিয়েছে সৌদি আরব।

শিকলবাহা ২২৫ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুৎকেন্দ্রে ৫ দশমিক ৩ কোটি ডলার ঋণ দিয়েছে সৌদি আরব। ডুয়েল ফুয়েল (প্রাকৃতিক গ্যাস ও ডিজেল) চালিত শিকলবাহা ২২৫ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুৎকেন্দ্রটির নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১৫ সালে। ২০১৭ সালের ৫ আগস্ট থেকে কেন্দ্রটি সিম্পল সাইকেলে এবং ৮ নভেম্বর থেকে কম্বাইন্ড সাইকেলে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু করে। বিদ্যুৎকেন্দ্রটি নির্মাণে মোট ব্যয় হয়েছে ২০১৮ কোটি টাকা টাকা।

বৈদেশিক অর্থায়ন না পাওয়া, প্রকল্প পরিচালক বদলি, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ব্যর্থতা ও রেলওয়ের জমি না পাওয়ার কারণে নারায়ণগঞ্জবাসীর বহুল প্রত্যাশিত শীতলক্ষ্যায় তৃতীয় সেতু প্রকল্পের অগ্রগতি থেমে যায়।

নারায়ণগঞ্জবাসীর স্বপ্নের এ সেতুর জট খুলেছে। পাওয়া গেছে সৌদি উন্নয়ন তহবিলের (এসএফডি) ৩৩২ কোটি টাকা ঋণ। এখন ২০২০ সালের আগেই সেতুটি নির্মিত হবে বলে আশা প্রকাশ করছে সরকার।

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে তিস্তা নদীর ওপরে সেতু নির্মাণে ৫ কোটি ডলার দিয়েছে সৌদি আরব।

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল নির্মাণে ৭ মিলিয়ন এবং মহাখালী ক্যান্সার হাসপাতাল নির্মাণে ১৫ মিলিয় ঋণ দিয়েছে সৌদি উন্নয়ন তহবিলের (এসএফডি)।

পাঁচটি বিভাগীয় শহরে (ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট) ন্যাশনাল ইনিস্টিটিউট বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি প্রকল্পে মিলেছে ৩ দশমিক ৪ কোটি ডলার।

সৌদি ঋণে পাইপ লাইনে যে চার প্রকল্প
ইআরডি সূত্র জানায়, দ্রুত সময়ের মধ্যে আরও চারটি প্রকল্পে মিলবে সৌদি ঋণ। এরমধ্যে অন্যতম হাওর অঞ্চলে ১০টি স্কুল নির্মাণ। স্কুলের পাশাপাশি এটা দুর্যোগ মুহূর্তে আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হবে। ছেলে ও মেয়েদের জন্য প্রতিটা স্কুলে থাকবে আলাদা হোস্টেল। এই প্রকল্পে সৌদি ৪ কোটি ডলার ঋণ দেবে।

ইসলামিক ও অ্যারাবিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পেও ৫ দশমিক ১ কোটি ডলার ঋণ দেবে বাংলাদেশের বন্ধু প্রতিম দেশটি। মাদ্রাসায় আইসিটি শিক্ষায় ৩ দশমিক ৬ কোটি এবং ইনট্রিগেটি সাপোর্ট ফর রুরাল প্রকল্পে ৪ দশমিক ৫ কোটি ডলার দেবে সৌদি।

ইআরডি’র সহকারী প্রধান আসাদুল হক বাংলানউজকে বলেন, চারটি প্রকল্প পাইপ লাইনে রয়েছে। এ প্রকল্পগুলোতে দ্রুত সময়ে ঋণ দেবে সৌদি আরব।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ