প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘খাও ও পান করো কিন্তু সীমা অতিক্রম করো না’

আবদুল আজিজ :  আমরা যখন নামাজ পড়তে আসব, তখন আমাদের উচিত সুন্দর পোশাক পরিধান করে নামাজ পরতে আসা। শুক্রবারের ক্ষেত্রে সেটা আরো বেশি প্রযোজ্য। পবিত্র কোরআনের আল আরাফ সুরার ৩১ নম্বর আয়াতে আল্লাহপাক ইরশাদ করেছেন, হে বনি আদম! প্রত্যেক ইবাদতের সময় তোমরা নিজ নিজ সুন্দর সাজে সজ্জিত হও। আর খাও ও পান করো কিন্তু সীমা অতিক্রম করো না, আল্লাহ সীমা অতিক্রমকারীদের পছন্দ করেন না।

এখানে সুন্দর সাজ বলতে পূর্ণ পোশাক-পরিচ্ছেদের কথা বলা হয়েছে। আল্লাহর ইবাদত করার জন্য দাঁড়ানোর সময় কেবল লজ্জাস্থান ঢাকাই যথেষ্ট হবে না; বরং একই সঙ্গে সামর্থ্য অনুযায়ী নিজের পূর্ণ পোশাক পরে নিতে হবে, যার মাধ্যমে লজ্জাস্থান আবৃত হওয়ার সাথে সাথে সৌন্দর্যের প্রকাশও ঘটবে। মূর্খ ও অজ্ঞ লোকেরা নিজেদের ভ্রান্তিনীতির ভিত্তিতে ইবাদতের ক্ষেত্রে যেসব কাজ করতো এবং এখনো করে চলেছে, এ নির্দেশে তার প্রতিবাদ করা হয়েছে। আল্লাহ বলেন, নিজেকে সুন্দর সাজে সজ্জিত করে এমন আকার আকৃতি ধারণ করে ইবাদত করতে হবে, যার মধ্যে উলঙ্গপনা তো দূরের কথা, অশ্লীলতার লেশমাত্রও যেন না পাওয়া যায়।

উল্লেখিত আয়াতটির শেষদিকে আল্লাহপাক ইরশাদ করেছেন, ‘খাও ও পান করো কিন্তু সীমা অতিক্রম করো না।’ এ কথার অর্থ হলো মানুষের দৈন্যদশা, অনাহারক্লিষ্ট জীবন এবং হালাল জীবিকা থেকে বঞ্চিত থাকা আল্লাহর কাছে প্রিয় নয়। আল্লাহপাকের বন্দেগি করার জন্য মানুষকে কোনো পর্যায়ে এসবের শিকার হতে হোক- এটা তিনি চান না। বরং তোমরা তার দেওয়া উত্তম পোশাক পরলে এবং পবিত্র ও হালাল খাবার খেলে তিনি খুশি। মানুষ যখন হালালকে হারাম করার বা হারামকে হালাল করার জন্য আল্লাহপাকের নির্ধারিত সীমারেখা অতিক্রম করে, তখনই সেটা তাঁর শরিয়ায় আসল গোনাহ হিসেবে চিহ্নিত হয়।

পবিত্র কোরআনের আল আরাফ সুরার ৩২ নম্বর আয়াতে আল্লাহপাক আরো ইরশাদ করেছেন, হে মোহাম্মাদ! তাদের বলে দাও, আল্লাহ তাঁর বান্দাদের জন্যে যেসব সৌন্দর্যসামগ্রী সৃষ্টি করেছেন, সেগুলো কে হারাম করেছে? আর আল্লাহর দেওয়া পবিত্র জিনিসগুলো কে নিষিদ্ধ করেছে? বলো, দুনিয়ার জীবনেও এসব জিনিস ঈমানদারদের জন্য, আর কিয়ামতের দিন এগুলো তো একান্তভাবে তাদেরই জন্য হবে। এভাবে যারা জ্ঞানের অধিকারী, তাদের জন্য আমার কথাগুলো আমি দ্ব্যর্থহীনভাবে বর্ণনা করে থাকি। আসলে ইসলামের বিধানগুলো খুবই সহজ। আল্লাহপাক আমাদের সবাইকে পরিপূর্ণ ইসলামী বিধান মেনে চলার তাওফিক দান করুন। আমিন।