প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিংগাইরে আওয়ামীলীগ মনোনয়ন প্রত্যাশীর মোটর সাইকেল শোডাউনে হামলা

সিরাজুল ইসলাম, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) :  আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মানিকগঞ্জ-২ আসনের আওয়ামীলীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী গোলাম মনির হোসেনের মোটর সাইকেল শোডাউনে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে গুলি বর্ষণসহ ১০-১২টি মোটর সাইকেল ভাংচুর করা হয়েছে। সেই সাথে আহত হয়েছেন বহরে থাকা মনির সমর্থিত ১৫ জন নেতাকর্মী।  শনিবার দুপুরে মুঠোফোনে গোলাম মনির হোসেন এ হামলার জন্য বর্তমান সংসদ সদস্য কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগমের গ্রুপকে দায়ী করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও আহতদের সাথে কথা বলে জানা যায়, গত শুক্রবার বিকেল ৩ টার দিকে জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, সদর উপজেলার হাটিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী গোলাম মনির হোসেন তার ইউপি কার্যালয়ের সামনে থেকে ৫শতাধিক মোটর সাইকেলের বহর নিয়ে শোডাউনে বের হন। বহরটি নির্বাচনী এলাকার সিংগাইর উপজেলার জামসা ইউনিয়নের সারারিয়া চৌরাস্তার মালেক মাষ্টারের বাড়ির অদূরে পৌঁছলে ওই ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেন মোল্লার নেতৃত্বে তোফাজ্জল হোসেন ও তার সহযোগিরা মোটর সাইকেল বহরকে ব্যারিকেড দেয় এবং রামদা, লোহার রড ও লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালায়। এ সময় ১০-১২টি মোটর সাইকেল ভাংচুরসহ দু‘রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে। এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। হামলাকারীদের মারধরে আনোয়ার হোসেন, লাবলু মিয়া ও সোহানসহ কমপক্ষে ১৫ জন নেতাকর্মী আহত হন।

আহতদের মধ্যে লাবল মিয়া বলেন, ঘটনাস্থলে পৌঁছানো মাত্র হামলাকারীদের একটি মোটর সাইকেল আঁড়াআড়ি ভাবে ফেলে রাস্তা আটকিয়ে দেয় এবং তাদের এলোপাথারী রামদার কোপে আমার ডান হাত কেটে যায়। সেই সাথে আমার ডিসকভার মোটর সাইকেলসহ ১০-১২টি গাড়ী ভাংচুর করে তারা। এ সময় হামলাকারীরা অস্ত্র উঁচিয়ে ২ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়লে লোকজন ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

মনোনয়ন প্রত্যাশী গোলাম মনির হোসেন বলেন, শারদীয় দূর্গাপুজা পরিদর্শন ও পুজারীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে মোটর সাইকেলযোগে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নৌকার পক্ষে প্রচারণা চালাতে বের হই। সিংগাইর উপজেলার সারারিয়া পৌঁছলে কণ্ঠশিল্পী এমপি মমতাজের সমর্থকেরা আমার লোকজনের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাদের মোটর সাইকেল ভাংচুরসহ মারধর করে। ফাঁকা গুলি করে আতংকের সৃষ্টি করে। তিনি আরো বলেন, এ ঘটনায় প্রভাব খাটিয়ে প্রতিপক্ষরা আমার লোকজনকে উল্টো মামলায় ফাঁসানোর চেষ্টা করছে। তিনি এ বিষয়টি দলীয় হাইকমান্ডের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

হামলার নেতৃত্বদানকারী অভিযুক্ত সাদ্দাম হোসেন মোল্লা বলেন, স্কুলে অধ্যয়নরত ভাই-ভাতিজাদের সাথে নিয়ে ৬টি মোটর সাইকেল যোগে পুজা দেখতে বের হই । সারারিয়া মোড়ে তারা মোটর সাইকেল বহর সাইড না দিয়ে রাস্তা ব্লক করে রাখে। ওই বহরের একটি মোটর সাইকেল আমার মোটর সাইকেলে ধাক্কাও মাড়ে। এ সময় তর্ক-বিতকের্র এক পর্যায়ে ওই গ্রুপ থেকে দু‘রাউন্ড গুলি ছুঁড়ে।

মানিকগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম দেশের বাইরে অবস্থান করায় তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে সিংগাইর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী আব্দুল মাজেদ খান মুঠো ফোনে বলেন, গোলাম মনির হোসেন মোটর সাইকেল বহর নিয়ে পুজামন্ডপে এলে স্থানীয় লোকজনের সাথে ধ্বস্তাধস্তি হয়। গুলি ছুঁড়ার কোন ঘটনা ঘটেনি। যেহেতু নিজেদের ব্যাপার, বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা চলছে।

এ ব্যাপারে সিংগাইর থানার ওসি মোঃ মতিয়ার রহমার মিঞা বলেন, এ ঘটনায় কেউ মামলা করতে আসেনি। তাছাড়া গুলি ছোঁড়ার কোন তথ্য পাইনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত