প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সপ্তাহ ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ১ হাজার ৩৪৩ কোটি টাকা

মাসুদ মিয়া: দেশের শেয়ারবাজার গত সপ্তাহ সূচকের নিন্মমুখী প্রবণতার মধ্যে দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। গত সপ্তাহে পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তিন কার্যদিবসেই দেশের শেয়ারবাজারে দরপতন হয়। দরপতনের কারণে এক সপ্তাহের ব্যবধানে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) লেনদেন কমেছে ১ হাজার ৩৪৩ কোটি ৫০ লাখ টাকা বা ৩৪ দশমিক ৫০ শতাংশ । বাজার ম‚লধন কমেছে আড়াই হাজার কোটি টাকার উপরে। বড় অঙ্কের বাজার ম‚লধন হারানোর পাশাপাশি গত সপ্তাহজুড়ে সবকটি ম‚ল্যস‚চকের পতন হয়।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে ডিএসইর বাজার ম‚লধন দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৮৮ হাজার ৯৬ কোটি টাকা, যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৩ লাখ ৯০ হাজার ৮৮২ কোটি টাকা। অর্থাৎ এক সপ্তাহে ডিএসইর বাজার ম‚লধন কমেছে ২ হাজার ৭৮৬ কোটি টাকা।

এদিকে সপ্তাহটিতে ডিএসইর প্রধান স‚চক ডিএসইএক্স কমে ৫৩ দশমিক ৪৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৯৮ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ স‚চকটি বাড়ে ১৬ দশমিক ৭৪ পয়েন্ট বা দশমিক ৩১ শতাংশ।অপর দুটি স‚চকের মধ্যে গত সপ্তাহে ডিএসই-৩০ আগের সপ্তাহের তুলনায় কমে ২৯ দশমিক ৬৯ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৫৪ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ স‚চকটি বাড়ে ২৭ দশমিক ৪০ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৪৪ শতাংশ।

আর ডিএসই শরিয়াহ্ স‚চক কমেছে ২২ দশমিক ২১ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৭৫ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ স‚চকটি বাড়ে ১৫ দশমিক শ‚ন্য ৩ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ২০ শতাংশ।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে ৯৭টির দাম আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে। অপরদিকে দাম কমেছে ২২৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৬টির দাম।

এদিকে সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয় ৫১০ কোটি ১৭ লাখ টাকা। এর আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ৭৭৮ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ২৬৮ কোটি ৭০ লাখ টাকা বা ৩৪ দশমিক ৫০ শতাংশ। আর গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৫৫০ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ৩ হাজার ৮৯৪ কোটি ৩৭ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন কমেছে ১ হাজার ৩৪৩ কোটি ৫০ লাখ টাকা বা ৩৪ দশমিক ৫০ শতাংশ।

গত সপ্তাহে মোট লেনদেনের ৮৫ দশমিক ২৯ শতাংশই ছিল ‘এ’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের দখলে। এ ছাড়া বাকি ৮ দশমিক ৩২ শতাংশ ‘বি’ ক্যাটাগরিভুক্ত, ৪ দশমিক ৩৭ শতাংশ ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের এবং ২ দশমিক শ‚ন্য ২ শতাংশ ‘জেড’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে খুলনা পাওয়ার কোম্পানির শেয়ার। কোম্পানিটির ২১০ কোটি ৭৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা সপ্তাহজুড়ে হওয়া মোট লেনদেনের ৮ দশমিক ২৬ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে থাকা সামিট পাওয়ারের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১৭৮ কোটি ৮৮ লাখ টাকা, যা সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৭ দশমিক শ‚ন্য ১ শতাংশ। ১২৫ কোটি ৫৫ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ