প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গৌরীপুরে আওয়ামী লীগের দেড় ডজন প্রার্থী

হ্যাপি আক্তার : জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ময়মনসিংহের গৌরীপুরে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা তৎপর হয়ে উঠেছে। তবে গৌরীপুরে আসনটিতে শুধু আওয়ামী লীগ থেকেই মনোনয়নপ্রত্যাশী প্রায় দেড় ডজন। বড় দলে বেশি প্রার্থী থাকা স্বাভাবিক বলে দাবি করেন নেতারা।

স্বাধীনতার পর থেকে ময়মনসিংহের গৌরীপুর থেকে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ সব দলেরই প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। ২০১৪ সালে এ আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের মজিবুর রহমান ফকির। তারপর ২০১৬ সালে উপ-নির্বাচনে বিজয়ী হন নাজিম উদ্দিন আহমেদ। তিনি ছাড়াও আগামী সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী লীগের দেড় ডজনেরও বেশি নেতা।

বর্তমান সংসদ সদস্য নাজিম উদ্দিন আহমেদ বলেন, দীর্ঘদিন ধরে দলের জন্য কাজ করছি। সরকারের উন্নয়ন কর্মকা-গুলো জনগণের কাছে তুলে ধরছি। গৌরিপুরে যেসব প্রার্থী আছে তাদের চেয়ে যোগ্যতায় এগিয়ে আছি। তাই আগামী নির্বাচনে আবারও মনোনয়ন পাব।

অন্যদিকে, ২০১৪ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে দলীয় টিকিট না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে আলোচিত হন নাজনীন আলম। এবারও মনোনয়ন চাইবেন তিনি। এছাড়া মনোনয়নে রয়েছেন দেড় ডজনেরও বেশি নেতা।

আওয়ামী লীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী নাজনীন আলম জানান, ‘আমি দলের উন্নয়ন কর্মকা- সাধারণ জনগণের কাছে প্রচার করছি। তারাও আমাকে যথেষ্ট সমর্থন দিয়েছে। তাদের এই জনসমর্থনই আমার বিশ্বাস, আগামী নির্বাচনে নেত্রী আমাকেই মনোনয়ন দিবে।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও মনোনয়ন প্রত্যাশী আবুল কালাম মুহাম্মদ আজাদ বলেন, ‘আমাদের মধ্যে কোনো প্রতিহিংসা নেই, তবে প্রতিযোগিতা আছে। আর দল করলে প্রার্থী হতেই পারে। আমি আশা করি একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে নেত্রী আমাকে অবশ্যই মূল্যায়ন করবে।’

এক আসনে এত বেশি প্রার্থী আওয়ামী লীগের জন্য বড় সমস্যা বলে মনে করছেন নেতাকর্মীরা। তারা জানায়, তৃণমূলের নেতাকর্মীদের যারা চেনে তাদেরকে যদি মনোনয়ন দেওয়া হয় তাহলে এই আসনটি আওয়ামী লীগের আসনে পরিনত হবে। যে দুর্নীতির বিপক্ষে ও সাধারণ মানুষের কথা বলে এমন একজনকেই প্রার্থী করা উচিত। সঠিক প্রার্থী মনোনয়ন না করলে এই আসনটি আওয়ামী লীগ হারাতে পারে।

অন্যদিকে, তৃণমূলের সাথে যাদের সম্পর্ক ভালো তাদের ব্যাপারে কেন্দ্রে সুপারিশ করা হবে বলে জানান জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল। তিনি বলেন, ‘দল যদি চায় তাহলে মনোনয়নের জন্য আমি সুপারিশ করবো ত্যাগী, শিক্ষিত ও পরিশ্রমি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের পরিবারের সন্তানকেই।’ সূত্র : ডিবিসি নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত