প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শখের মোটরসাইকেলই কেড়ে নিলো পুলিশ সদস্যের প্রাণ

পরিবর্তন : পুলিশের চাকুরি করলেও শখ তার নতুন মোটরসাইকেল। সময় পেলে মোটরসাইকেল নিয়ে ঘুরাঘুরি। সেই মোটরসাইকেল কেড়ে নিলো পুলিশ কনস্টেবল আসাদ রানার (২৬) প্রাণ।

মেহেরপুরের সদর উপজেলার নুরপুর মোড়ে দু’টি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত হন আসাদ রানা। আসাদ রানা মেহেরপুর কোর্টে কর্মরত ছিলেন। পার্শ্ববর্তী জেলা চুয়াডাঙ্গার দামুরহুদা উপজেলার চন্দিপুর গ্রামের আলী আহম্মেদের ছেলে তিনি।

২০১১ সালে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে কনস্টেবল পদে যোগদান করেন। দীর্ঘ ৫ বছর মেহেরপুর জেলায় কর্মরত ছিলেন তিনি। তার মৃত্যুতে মেহেরপুর জেলা পুলিশের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

মেহেরপুর পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, মেহেরপুর কোর্টে কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল আসাদ রানা আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় ছুটি নিয়ে গ্রামের বাড়ি চুয়াডাঙ্গা যাওয়ার পথে সদর উপজেলার নুরপুর মোড়ে অপর দিক থেকে আসা একটি মোটরসাইকেলের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রাজশাহী মেডিকেলে রেফার্ড করেন।

রাজশাহী যাওয়ার পথে কুষ্টিয়া জেলার মীরপুর নামক স্থানে পুলিশ সদস্য আসাদ রানা রাত সাড়ে ৯টার সময় মারা যান। পরে নিহতের লাশ মেহেরপুর পুলিশ লাইনস মাঠে নিয়ে আনা হয়েছে বলে তিনি আরও জানান।

নিহত আসাদ রানার সহকর্মী মেহেদী হাসান জানান, গত ১৭ অক্টোবর রানার জন্মদিন ছিল। আজ পৃথিবীর মায়া ছেড়ে চলে গেল। রানার শখ ছিল নতুন মোটরসাইকেলের। সে সব সময় মোটরসাইকেল নিয়ে ঘুরতে ভালবাসতেন। তার মৃত্যু কোনভাবেই আমরা মেনে নিতে পারছি না। মেহেদী আরো জানান, নিহত আসাদ রানার চার বছর বয়সের এক পুত্র সন্তান রয়েছে।

সর্বাধিক পঠিত