প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উদোর পিন্ডি বুদোর ঘাড়ে
খাসোগজি ইস্যুতে সৌদি ইন্টেলিজেন্স প্রধানকে ফাঁসাতে ওয়াশিংটনের চাপ

নূর মাজিদ : ভিন্ন মতালম্বি সাংবাদিক জামাল খাসোগজি হত্যায় সৌদি আরবকে বাঁচাতে এবার ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছে যুক্তরাষ্ট্র খবর গার্ডিয়ানের। গতকাল শুক্রবার ব্রিটিশ দৈনিকটির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি ইন্টেলিজেন্স সার্ভিসের প্রধান জেনারেল আহমেদ আল-আসসিরির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সৌদি যুবরাজ বিন সালমানের ওপর চাপ প্রয়োগ করছে যুক্তরাষ্ট্র। ওয়াশিংটনের বিশ্বাস, এই প্রক্রিয়ায় তারা খাসোগজি নিখোঁজ বা হত্যার পেছনে সৌদি যুবরাজের দায় নেই এমন ভাষ্য মার্কিন জনগণের কাছে উপস্থাপন করতে পারবে। এছাড়াও, খাসোগজি নিখোঁজের ষড়যন্ত্রের তথ্য মার্কিন গোয়েন্দাদের কাছে থাকার পরেও যে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি সেই দায়ও এড়াতে পারবে যুক্তরাষ্ট্র। তবে প্রকাশ্যে নয় বরং পম্পেও-সালমান বৈঠকে এই পরিকল্পনা আলোচনা হয়েছে।

জেনারেল আহমেদ আল আসিরি সৌদি যুবরাজের সবচাইতে বিশ্বস্ত কর্মকর্তাদের একজন। ইতোপূর্বে তিনি সৌদি বিমান বাহিনীর একজন শীর্ষ কর্মকর্তা ছিলেন এবং সৌদি আরবের ইয়েমেন আগ্রাসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তার কাছেই রাজ্যের সকল গুরুত্বপূর্ণ গোয়েন্দা তথ্য ও অভিযানের খবর থাকে। আসিরিকে ফাঁসিয়ে দিলে, তাতে যুবরাজের নির্দেশের দায় অনেকটাই লঘু হয়ে যাবে। গার্ডিয়ান জানায়, গত দুদিন ধরেই মার্কিন কর্মকর্তারা এমন ইঙ্গিত দিচ্ছেন যে সৌদি বাদশাহ বা যুবরাজ নয় বরং দেশটির একজন শীর্ষ কর্মকর্তা খাসোগজিকে হত্যা বা অপহরণের নির্দেশ দেন। এই প্রেক্ষাপট সাজিয়েই পরবর্তী পরিকল্পনা হিসেবে আসিরির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চাপ প্রয়োগ করছে যুক্তরাষ্ট্র।

এরই অংশ হিসেবে, খাসোগজি হত্যাকা-ের ঘটনা তদন্তে সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম বেঁধে দিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। সৌদি যুবরাজকে সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেছেন, বিশ্ব পরিমণ্ডলে সৌদি আরবের অবস্থান ভূলুণ্ঠিত করতে না চাইলে আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে খাসোগজি হত্যার তদন্ত শেষ করতে হবে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম অ্যাক্সিওসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এর আগে মঙ্গলবার রিয়াদে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে বৈঠক করেন মাইক পম্পেও। অ্যাক্সিওস বলছে, বৈঠকে যুবরাজ সালমানকে মাইক পম্পেও বলেছেন যে, ইস্তান্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে ভয়ানকভাবে খাসোগজি হত্যার ঘটনায় সৃষ্ট পরিস্থিতি সম্পর্কে সৌদি আরবকে চিন্তা-ভাবনা করা প্রয়োজন। ক্রমবর্ধমান বৈশ্বিক উদ্বেগের কারণে এ কেলেঙ্কারি মোকাবেলা করার সময় ‘সীমিত’ বলে সৌদি যুবরাজকে সতর্ক করে দিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। দ্য গার্ডিয়ান/ প্রেসটিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ