প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর জানাজায় মানুষের ঢল

এস এম এ কালাম : বাংলাদেশের ব্যান্ড সংগীতের অন্যতম কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বাদ জুমা জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম জানাজা হয়। এর আগে শহীদ মিনারে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি সর্বসাধারণ শেষ শ্রদ্ধা জানান।শ্রদ্ধা জানানো শেষে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে নেওয়া হয়। শিল্পী, নাট্যকার, রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, আইনজীবীসহ সর্বস্তরের হাজার হাজার মানুষ আইয়ুব বাচ্চুর জানাজায় অংশ নেন।

আইয়ুব বাচ্চুর জানাজার নামাজ পড়ান হাইকোর্ট মসজিদের ইমাম আবু সালেহ সাইফুল্লাহ। বিএনপির ভাইস প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ আল নোমান, মাহবুব উদ্দিন খোকন, খায়রুল কবির খোকন, শিল্পী ফকির আলমগীর, নকীব খান, চিত্রনায়ক সায়মন, গায়ক বিপ্লব, খালেদ, কবির বকুল, অন্তর শো বিজের পরিচালক স্বপন চৌধুরীসহ হাজার হাজার লোক জানাজায় অংশ নেন।

জানাজায় আইয়ুব বাচ্চুর ছোট ভাই এরফান চৌধুরী বলেন, আইয়ুব বাচ্চু সব সময় মানুষকে সাহায্য করতেন। সাধারণ মানুষকে তিনি ভালোবাসতেন। পরিবারের প্রতি তার অগাধ ভালোবাসা ছিলো। তিনি গান শেষে সব সময় সকলের উদ্দেশ্যে বলতেন আপনারা সবাই মায়ের কোলে ফিরে যান। তিনি বলেন, সবাই আমার ভাইয়ের জন্য দোয়া করবেন। জানাজা অনুষ্ঠানের আগে ভক্তদের ভিড়ের কারণে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের বেগ পেতে হয়।

জানাজায় অংশ নিতে মিরপুর থেকে আসা তপন নামের এক ভক্ত জানান, মেনে নিতে পারছিনা স্যার নেই। ছোট কাল থেকেই তার গানকে মনে প্রাণে ধারণ করে বড় হয়েছি। তিনি নেই বিশ্বাস করতে পারছিনা।

এদিকে প্রথম জানাজা শেষে মগবাজারে কাজী অফিস গলিতে আইয়ুব বাচ্চুর গান তৈরির কারখানা ‘স্টুডিও এবি কিচেন’-এ শেষবারের মতো তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয়।বিকেলে মগবাজারের কাজী অফিস গলির মসজিদের সামনে আইয়ুব বাচ্চুর দ্বিতীয় ও তেজগাঁওয়ের চ্যানেল আইয়ের ভবনে তৃতীয় নামাজের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ আবারো স্কয়ার হাসপাতালে হিমঘরে রাখা হয়। সেখান থেকে মরদেহ শনিবার চট্টগ্রামে নেয়া হবে বলে জানিয়েছে তার পরিবারের সদস্যরা।

চট্টগ্রামে মায়ের কবরের পাশে বাংলাদেশের ব্যান্ড সংগীতের কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হবে। অস্ট্রেলিয়া ও কানাডা থেকে আইয়ুব বাচ্চুর মেয়ে ফাইরুজ সাফরা আইয়ুব ও ছেলে আহনাফ তাজোয়ার আইয়ুব দেশের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। তারা এলে চট্টগ্রামে শনিবার আরেক দফা জানাজা শেষে মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন আইয়ুব বাচ্চু।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা ৫৫ মিনিটে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন আইয়ুব বাচ্চু। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৬ বছর। আইয়ুব বাচ্চু ১৯৬২ সালে চট্টগ্রাম শহরে জন্মগ্রহণ করেন। ব্যান্ডের সঙ্গে তাঁর যাত্রা শুরু ১৯৭৮ সালে ‘ফিলিংস’ ব্যান্ডের মাধ্যমে।

আউল-বাউল-লালনের এই বাংলার তরুণদের রক গানের স্বাদ চিনিয়েছেন যাঁরা, তাঁদের মধ্যে অন্যতম রূপালী গীটারের আইয়ুব বাচ্চু। ব্যান্ড সংগীতের কিংবদন্তি এই শিল্পী দীর্ঘ চার দশক ধরে সুরের আলো ছড়িয়েছেন। এছাড়া গিটারের ছয় তারেও জয় করেছেন উপমহাদেশ।