প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘নারী বলে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বিশ্বাস রাখতে পারছিল না’

স্মৃতি খানম: একজন নারীর ব্যতিক্রমী এক উদ্যেগে স্থাপিত হয়েছে দেশের সবচেয়ে বড় রান্নাঘর যেখানে একবার রান্নআকরা হয় কয়েক হাজার লোকের খাবার। আমি আফরোজা খান খান‘স কিচেনের উদ্যোক্তা” আমি এটি ২০১৭ সালের সেস্টেম্বরের ১০তারিখ থেকে শুরু করি। আমি এটি শুরু করেছি এই কারণে যে অফিসে মানুষের খাবারের অনেক মসস্যা তাদের জন্য কিছু করা যায় কি না” সে থেকেই আমার এই উদ্যোগ। মনে হচ্ছে আমি একটা সেবামূলক কাজ করছি। আমার এখানে প্রায় ৩০০-৪০০লোক কাজ করছে এটা দিন দিন বাড়ছে।আমাদের এখানে যে সুবিধা আছে তাতে একবারে ৫০০০-১০০০০ হাজার লোকের রান্না করা যায়।

আমি ব্যবসা শুরুর আগে ব্যাংকের কাছে ঋণ চাইঅ প্রথমে তারা বললো হ্যাঁ উদ্যোগটা ইউনিক যখন বিনিয়োগের কথা আসলো। নারী উদ্যেগক্তা হলেও তার প্রতিষ্ঠানে নারী কর্মচারী খুবই কম। ওদের খুব সকালে আসতে হয় ডেলিভারির জন্য বাইরে যেতে হচ্ছে। সুতরাং এখানে ছেলে দরকার। আর শেফদেরও কঠিন পরিশ্রম করতে হয় রাত ৪টার এসে রান্না করতে হয়।

অনেকের স্বামী বলেছে যে তারা রাতে কাজ করতে পারবেনা সেজন্য তারা চাকরি ছেড়ে চলে গেছে। আমার স্বামী আমাকে সহযোগিতা করছে বাচ্চারা বুঝে কোন একটা কাজে আছে। বাচ্চাদের স্কুলে দিয়ে আমি এখানে চলে আসি স্কুল ছুটির তাদের বাসায় নিয়ে গিয়ে কিছু সময় কাটাই। এরপর আবার এখানে চলে আসেতে হয়।

ব্যবসা করতে গেলে আইডিয়াটা বেশি জরুরী এবং আথিক সঙ্গতিটাই বড় বাধা। কারন মেয়েদের উপর আস্থা রাখে না। আমরা নারী আমাদের দ্বারা কিছু সম্ভব না এই চিন্তা থেকে আমাদের বের হয়ে আসতে হবে। তাহলে আমার অবশ্যই ভালো কিছু করতে পারবো। সূত্র: বিবিসি বাংলা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত