প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৫ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ ডিমের দাম
ডিমের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সবজির দাম

মাসুদ মিয়া: রাজধানীর বাজারগুলোতে বেড়েই চলেছে ডিমের দাম সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সবজির দাম। একমাস আগে ৯৫ টাকা ডজন বিক্রি হওয়া ডিমের দাম এখন দাঁড়িয়েছে ১০৫ টাকা থেকে ১১০ টাকা আর কোন কোন স্থানে ১২০ টাকা পর্যন্ত নিচ্ছে। যা গত ৫ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। শুক্রবার রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, এখন ডিমের চাহিদা খুব বেড়েছে। বাজারে ডিমের যে পরিমাণ চাহিদা রয়েছে, খামারিরা তা সরবরাহ দিয়ে পারছে না। সরবরাহের তুলনায় চাহিদা বেশি থাকায় ডিমের দাম বেড়েছে। ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত এক মাসের ব্যবধানে ডিমের দাম বেড়েছে ৩ দফা। এর মধ্যে শেষ দুই সপ্তাহ দাম বৃদ্ধির হার ছিল সব থেকে বেশি। রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, শুধু ডিম বিক্রি করেন এমন ব্যবসায়ীরা প্রতি ডজন ডিম ১০৫-১১০ টাকায় বিক্রি করছেন। এক সপ্তাহ আগেও এসব ব্যবসায়ীরা ৯৫-১০০ টাকা ডজনে ডিম বিক্রি করেছেন।

খুচরা পর্যায়ে মুদিদোকানে এক পিস ডিম বিক্রি হচ্ছে ১০ টাকায়। আর হালি হিসেবে বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়। এসব ব্যবসায়ীরা এক ডজন ডিম বিক্রি করছেন ১১৫-১২০ টাকায়।

মিরপুর ব্যবসায়ী সিরাজুল ইসলাম বলেন, গত একমাস ধরেই ডিমের দাম বাড়তি। কিছুদিন আগেও এক ডজন ডিম ৯০ টাকায় বিক্রি করেছি। আর এখন এক ডজন ডিম ১১০ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। এদিকে সবজির দামও পাল্লা দিয়ে বেড়েছে। সপ্তাহ ব্যবধানে অধিকাংশ সবজির দাম বেড়েছে ৫ টাকা থেকে ১০ টাকা। আর শীতের সবজি শিমের দাম এখনো চড়া ১০ টাকা বেড়ে বিক্রয় হচ্ছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকা। তবে অপরিবর্তিত রয়েছে পেঁয়াজের ও চলের দাম। দুই মাস ধরে বাজারে সব চেয়ে দামি সবজির তালিকায় রয়েছে শিম। বাজার ও মান ভেদে টমেটো বিক্রি হচ্ছে ৮০-১২০ টাকা কেজি। একশ’ টাকার উপরে বিক্রি হওয়া এ তিন সবজির পাশাপাশি চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে শীতের অন্যতম আগাম সবজি ফুলকপি। এখন এ সবজিটি ৪০ টাকা থেকে ৫০ টাকার নিচে পাওয়া যাচ্ছে না। বাজার বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা কেজি। উচ্ছের দাম বেড়ে ৫০-৬০ টাকা কেজি, করলার দাম কিছুটা কম। এ সবজিটি বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকা কেজি। বরবটি ৫০-৬০ টাকা কেজি। এ ছাড়া চিচিংগা, পটল, ধেঁড়স, ঝিঙা, ধুনদল, কাকরল বিক্রি হচ্ছে ৩০-৪০ টাকা কেজি। আগের সপ্তাহেও এ সবজিগুলোর দাম এমনই ছিল।

এদিকে দাম অপরিবর্তিত রয়েছে পেঁয়াজ, ব্রয়লার মুরগির। বাজার ও মানভেদে দেশি পেঁয়াজ আগের সপ্তাহের মতো ৪০-৪৫ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। আর ব্রয়লার মুরগির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। কেজি বিক্রি হচ্ছে ১১৫-১২০ টাকা।

চালের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। রাজধানীর বিভিন্ন বাজারঘুরে দেখা যায়। আউশ চাল বিক্রি হচ্ছে ৩৬-৩৭ টাকা কেজি দরে। মোটা চাল স্বর্ণা ও গুটি ৩৬ থেকে ৩৮ টাকা, মাঝারি চাল বিআর ২৮ ও লতা ৪২ থেকে ৪৩ টাকা, সরু চাল মিনিকেট মানভেদে ৫৩ থেকে ৫৫ টাকা ও নাজিরশাইল ৫৬ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ