প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সৌদি আরবের সমর্থনে অবিচল ট্রাম্প
খাসোগজি নিখোঁজ রহস্যের তদন্তে নতুন মোড়

নূর মাজিদ : তুরস্কের বিচারমন্ত্রী আব্দুল হামিদ গুল জানিয়েছেন, খাসোগজি নিখোঁজ রহস্যের তদন্তে নতুন সুত্র আবিষ্কার করেছে তুর্কি গোয়েন্দারা। গোয়েন্দাদের বিশ্বাস, কূটনীতিক লাগেজে করে খাসোগজির লাশ পাচার করেনি গুপ্তঘাতকেরা, বরং সৌদি কনস্যুলার জেনারেলের বাসভবন অথবা অপর আরেকটি স্থানে তার মৃতদেহ গুম করেছে অপরাধীরা। সরকারি সমর্থনপুষ্ট তুর্কি দৈনিক ইয়েনি সাফাকের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম জানায়, দেশটির গোয়েন্দারা বর্তমানে ইস্তাম্বুল শহরের বাহিরে একটি জঙ্গলাকীর্ণ স্থানে অনুসন্ধান পরিচালনা করছেন। এই এলাকায় স্থাপিত নিরাপত্তা ক্যামেরায় ঘটনার দিন সৌদি গুপ্তঘাতকদের আসা যাওয়ার চিত্র ধারণ করা হয়। পরবর্তীকালে ওই ভিডিও ফুটেজ বিশ্লেষণ করেই

গুপ্তঘাতকদলের চিহ্নিত সদস্যদের ওই স্থানে যাতায়াতের বিষয়টি সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েছে তুর্কি গোয়েন্দা দল। তবে মার্কিন গণমাধ্যম সিবিএস সংবাদদাতা হলি উইলিয়ামস মার্কিন গোয়েন্দাসূত্রের বরাত দিয়ে জানান, সৌদি কনস্যুলার জেনারেলের বাসভবনেই খাসোগজির লাশ পাওয়ার অধিক সম্ভাবনা রয়েছে। তুরস্ক শুরু থেকেই দাবি করে আসছে, ইস্তাম্বুলস্থ সৌদি কনস্যুলেটের অভ্যন্তরে সাংবাদিক জামাল খাসোগজিকে হত্যা করে তার লাশ টুকরো টুকরো করা হয়েছে। এই ঘটনার ১৬ দিন পার হয়ে গেলেও লাশ পাওয়া গেলে তদন্ত কাজের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধিত হবে বলেই আশা প্রকাশ করেছে তুর্কি গোয়েন্দাসূত্র। গতকাল নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, মার্কিন গোয়েন্দারা এখন প্রায় নিশ্চিত সৌদি যুবরাজ বিন সালমানের সরাসরি নির্দেশেই খাসোগজি নিখোঁজ হয়েছেন।

তবে তুরস্কের কাছে হত্যাকাণ্ডের অডিও রেকর্ডিংয়ের একটি করে কপি চেয়েছে ব্রিটিশ ও মার্কিন প্রশাসন। এই বিষয়ে গত বুধবার ট্রা¤প হোয়াইট হাউজে সংবাদকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, পম্পেও তার সফর শেষ করে দেশে ফেরা মাত্র আমি তাকে যে প্রশ্ন করব তা হলো তুরস্কের কাছে সত্যিই এমন কোনো রেকর্ডিং আছে কিনা। এই অডিও রেকর্ডিংয়ের একটি কপি আমরাও চাই।

মার্কিন গণমাধ্যম ভক্স নিউজ জানিয়েছে, সৌদি আরবের ১১ হাজার কোটি ডলারের অস্ত্রচুক্তি নিয়ে ট্রা¤প যে দাবি করেছেন তা সর্বাঙ্গে সত্যি নয়। ট্রা¤প যুক্তরাষ্ট্রের লাখ লাখ চাকরি সৌদি অস্ত্র ক্রয়ের ওপর নির্ভরশীল দাবি করে বলেছিলেন, দেশটির বিরুদ্ধে কোনো ধরনের অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপের সিদ্ধান্ত সঠিক হবে না। তবে ভক্স জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা শিল্পে ৩ লাখ ৫৫ হাজার লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে, তবে সৌদি আরব মূলত যুক্তরাষ্ট্র থেকে গোলাবারুদ ও বোমা কিনে থাকে যেখানে মানবিক শ্রমের চাইতে স্বয়ংক্রিয় মেশিনের উপস্থিতি বেশি। ভক্স এক পরিসংখ্যানের বরাত দিয়ে জানায়, মার্কিন অস্ত্র শিল্পের মোট কর্মসংস্থান যুক্তরাষ্ট্রের সমগ্র চাকরির বাজারের মাত্র শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ। যুক্তরাষ্ট্র যদি সৌদি আরবকে অস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করে দেয় তবে উল্টো সৌদি আরব চাপের মুখে পড়বে।

এই বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদারপন্থি বিদেশনীতি বিষয়ক গবেষক উইলিয়াম হাতুং বলেন, অস্ত্রবিক্রয় এবং কর্মসংস্থানের স¤পর্ককে বিভ্রান্তিকরভাবে জড়িয়ে ফেলা হয়েছে। ইয়েমেন যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের সরবরাহ করা বোমা ও গোলাবারুদ ব্যবহার করে নিরস্ত্র ইয়েমেনি নাগরিকদের হত্যা করছে সৌদি আরব। প্রতিটি মার্কিন প্রশাসন ইরানকে মোকাবেলার কৌশল স্বরূপ সৌদি আরবের মানবাধিকার লঙ্ঘনকে সমর্থন দিয়ে আসছে। ভক্স, সিএনএন, ইয়েনি সাফাক, ওয়াশিংটন পোস্ট।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ