প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আলীকদমে গরু ব্যবসায়ী হত্যার ঘটনায় আটক ৬ জনের দায় স্বীকার

মো. নুরুল করিম আরমান, লামা: বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার গরু ব্যবসায়ী হেলাল হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত ছয় যুবক খুনের দায় স্বীকার করে বুধবার বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে।

ঘটনাস্থলের আশপাশ এলাকা থেকে ওই ছয় যুবককে আটক করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত এজাহারভূক্ত আরো ২ জনকেও গত বুধবার গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। গত সোমবার বিকালে সেনাবাহিনীর সহায়তায় পুলিশ উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৬০ কিলোমিটার দুর্গম পাহাড়ি কুরুকপাতা ইউনিয়নের ইন্দুরমুখ থেকে হেলালের লাশ উদ্ধার করে। সংগঠিত হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতারে সেনাবাহিনী ও পুলিশের দক্ষতায় খুশি স্থানীয়রা।

সূত্র জানায়, গত সোমবার বিকালে আলীকদম সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় পুলিশ সদস্যরা হেলালের ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধারের পাশাপাশি ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৭ জনকে ঘটনাস্থলের আশপাশ থেকে আটক করা করে পুলিশ। পরে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সংশ্লিষ্টতা না পাওয়ায় মারান কমান্ডার নামে একজনকে ছেড়ে দিয়ে ৬ জনকে বুধবার বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়। এ ছয় জনের প্রত্যেকেই খুনের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জবানবন্দি দেয়।

এজাহারভূক্ত আরো দুইজনকে বুধবার গ্রেফতার করে দুলাল নামের একজনকে বৃহস্পতিবার বান্দরবান সদর ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করে পুলিশ।

ঘটনার পর নিহতের বড় ভাই মো. ইলিয়াছ বাদী হয়ে খুনের ঘটনায় গত ১৫ অক্টোবর ৯ জনকে বিবাদী করে থানায় এজাহার দায়ের করেন। এজাহারে বাদী উল্লেখ করে বলেন, মো. হেলাল কিছুদিন আগে একটি গরু কেনা জন্য আসামী মেনছুক ম্রো, মাংইন ম্রো ও দুলালের সাথে পোয়ামুহুরী এলাকায় যায়। সেখানে গরুর দাম নির্ধারণে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য হয়। পরবর্তীতে ১ অক্টোবর হেলাল গরু কেনার টাকা নিয়ে আলীকদমের নয়াপাড়াস্থ বাড়ি থেকে পোয়ামুহুরী বাজারে যায়। সেখান থেকে মেনছুক ম্রো গরু কেনার কথা বলে হেলালকে গত ৬ অক্টোবর ইন্দুরমুখে নিয়ে যায়। পরে ওইদিন সকাল ৯টার থেকে যেকোন সময়ই হেলাল হত্যার শিকার হয়।

এজাহারে তিনি আরও উল্লেখ করেন, হত্যাকাণ্ডে সময় আসামী রাংফাং ম্রোর ধারালো অস্ত্রের কোপে হেলালের লিঙ্গসহ অন্ডকোষ কেটে যায়। এরপর আসামী লুহোব ম্রো, মেনতা ম্রো, কংপং ম্রো, মাংরাং ম্রো, মাংঅং ম্রোসহ অজ্ঞাতনামা ৭-৮ জন হেলালকে গলাকেটে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে তার ব্যাগে থাকা ৩০ হাজার টাকা নিয়ে যায়।

এদিকে, ঘটনার পর থেকে খুনীদের মধ্যে রাংফাং ম্রো এখনো পলাতক রয়েছে। তবে এ পর্যন্ত এজাহারভূক্ত ৮ জন গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। অভিযুক্তরা হলো মেনচুক ম্রো (১৮), মাংইন ম্রো (২৬), লোহব ম্রো (৪৫), মেনতা ম্রো (২৪), কংপং ম্রো (৪০), মাংরো ম্রো (২৫), মাংঅং ম্রো (২২) ও দুলাল কান্তি দাশ (৪৫)। এর মধ্যে ১নম্বর বিবাদী রাংফাং ম্রো এখনো পলাতক রয়েছেন। গ্রেফতার হওয়া লোহব ম্রো বিলুপ্ত হওয়া ন্যাশনাল ডেমোক্রেসি পার্টি (এমএনপি’র) একাংশের প্রধান বলে স্থানীয় সূত্র জানিয়েছেন।

আলীকদম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রফিক উল্লাহ্ বলেন, গরু ব্যবসায়ী হেলাল হত্যার ঘটনায় আটক ৬ জন বুধবার আদালতে দায় স্বীকার করেছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্য দুই জনকেও আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুলাল নামের একজনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ