প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

২০ থেকে ৩০ অক্টোবর পাড়া-মহল্লায় গণসংযোগ যুবলীগের
বিএনপিকে নিষিদ্ধের দাবিতে মাঠে নামছে আওয়ামী লীগ

আবুল বাশার নূরু : বিএনপিকে আইনগতভাবে নিষিদ্ধের দাবিতে মাঠে নামছে আওয়ামী লীগ। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগেই এই দাবিতে সারাদেশে সভা, সমাবেশ ও গণসংযোগ চালাবে দলটি। জানা গেছে, আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির আগামী সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান এমপি এই প্রতিবেদককে বলেন, কানাডার একটি আদালত বিএনপিকে সন্ত্রাসী রাজনৈতিক দল হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। দুর্নীতির অভিযোগে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। দলটির বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানকে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার দায়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। তাই দলটি গণতন্ত্রের জন্য হুমকি স্বরূপ। বিএনপিকে নিষিদ্ধের দাবিতে যুবলীগ যে কর্মসূচি নিয়েছে সেটি সঠিক বলে মনে করেন আব্দুর রহমান।

আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ বলেন, বিএনপি কোনও রাজনৈতিক দলের সজ্ঞাতেই পড়ে না। অবৈধভাবে জন্ম নেওয়া এই দলটি এরই মধ্যে দেশে-বিদেশের আদালতে সন্ত্রাসী ও দূর্নীতিগ্রস্ত হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। বিএনপির সঙ্গে দেশবাসী যেন সম্পর্ক না রাখে সে ব্যাপারে আমরা জনমত সৃষ্টি করতে মাঠে নামব। বিএনপিকে নিষিদ্ধ করার দাবিতে কর্মসূচি নির্বাহী কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত হতে পারে বলে মনে করেন শাম্মী আহমেদ।

বিএনপিকে নিষিদ্ধ করার দাবিতে ধারাবাহিক কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নামছে যুবলীগও। সংগঠনের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরীর নির্দেশে জনমত সৃষ্টি করতে ১০দিন ব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ। দক্ষিণের ৭৫টি ওয়ার্ডে ২০ থেকে ৩০ অক্টোবর টানা কর্মসূচি পালন করবে সংগঠনটি। এসকল কর্মসূচিতে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় সম্পৃক্ততাসহ দলটির বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের অভিযোগ তুলে অতিদ্রুত সময়ের মধ্যে বিএনপির রাজনীতি নিষিদ্ধ চাইবে সংগঠনটি। এই সময়ের দাবি পূরণ না হলে পরবর্তীতে বৃহৎ কর্মসূচিতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন যুবলীগ ঢাকা দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট।

বুধবার রাজধানীর কাকরাইলে যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিনের বিশেষ বর্ধিত সভায় তিনি এমন ঘোষণা দেন। সম্রাট চৌধুরী বলেন, কানাডার আদালত রায় দিয়েছিল বিএনপি একটি সন্ত্রাসী সংগঠন। সম্প্রতি একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে প্রমাণিত হয়েছে রাষ্ট্রীয় ও দলীয় সিদ্ধান্ত নিয়েই আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল। লক্ষ্যভেদ হয়ে নারী নেত্রী আইভী রহমানসহ ২২ জন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী নিহত হয়। এই সন্ত্রাসী সংগঠনকে বাংলাদেশে রাজনীতি করতে দেয়া যায় না। কাজেই তাদের রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে। একই সঙ্গে এই মামলায় তারেক জিয়ার সর্বোচ্চ শাস্তিসহ পলাতক আসামীদের দেশে দেশে এনে দ্রুত রায় কার্যকর এবং এই মামলায় বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ারও বিচারের দাবি করেন তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ