Skip to main content

ওয়ালটন ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চলবে

নিজস্ব প্রতিবেদক : বছর পেরোলো ওয়ালটনের ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। অনলাইন ডাটাবেজ তৈরির মাধ্যমে ক্রেতাদের দোরগোঁড়ায় বিক্রয়োত্তর সেবা পৌঁছে দিতে গত বছর ২ অক্টোবর দেশব্যাপী এই ক্যাম্পেইন শুরু করে ওয়ালটন। এর আওতায় এক বছরে ক্রেতাদের নতুন গাড়ি, আমেরিকা-রাশিয়ার বিমান টিকেট, হাজার হাজার পণ্য ফ্রিসহ নিশ্চিত ক্যাশব্যাক দেয়া হয়েছে। পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চলবে। বুধবার (১৭ অক্টোবর, ২০১৮) রাজধানীর ওয়ালটন করপোরেট অফিসে আয়োজিত অনুষ্ঠানে কেক কেটে বর্ষপূর্তি উদযাপন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ওয়ালটনের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এবং বিপণন বিভাগের প্রধান সমন্বয়ক ইভা রিজওয়ানা। বিশেষ অতিথি ছিলেন এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর নজরুল ইসলাম সরকার, হুমায়ূন কবির, এস এম জাহিদ হাসান, ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর আরিফুল আম্বিয়া, সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর গোলাম মুর্শেদ, অপারেটিভ ডিরেক্টর ফিরোজ আলম ও শাহাজাদা সেলিম, অ্যাডিশনাল অপারেটিভ ডিরেক্টর ড. মো. সাখাওয়াত হোসেন, ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ইউনিটের প্রেসিডেন্ট মি. কিম, ব্র্যান্ড ডেভেলপমেন্ট প্রধান চিত্রনায়ক আমিন খান প্রমূখ। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সাফল্যময় এক বছর পেরিয়ে এখন চলছে ক্যাম্পেইনের সিজন-৩। এর আওতায় দেশের যে কোনো ওয়ালটন প্লাজা বা পরিবেশক শোরুম থেকে ফ্রিজ, টিভি কিংবা এয়ার কন্ডিশনার কিনে রেজিস্ট্রেশন করলেই ক্রেতারা পাচ্ছেন নতুন গাড়ি, মোটরসাইকেল, অসংখ্য ফ্রি পণ্য অথবা নিশ্চিত ক্যাশব্যাক। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইভা রিজওয়ানা বলেন, ক্যাম্পেইন নিয়ে সারা দেশের ক্রেতাদের কাছ থেকে অভূতপূর্ব সাড়া মিলেছে। যা এই ক্যাম্পেইন চালিয়ে যেতে উদ্বুদ্ধ করেছে। তিনি জানান, ওয়ালটন পণ্য কিনে গাড়ি পাওয়া ক্রেতাদের কাছে তাৎক্ষণিকভাবে গাড়ি হস্তান্তর করা হয়েছে। এর অর্থ ওয়ালটন ক্রেতাদের দেয়া প্রতিশ্রুতি যথাযথভাবে রক্ষা করে। উচ্চমানের পণ্য ও সেবা প্রদানে ওয়ালটন সেরা ছিল, সেরা আছে এবং সেরা থাকবে। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, গত বছর ২ অক্টোবর থেকে চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলে ওয়ালটনের প্রথম ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। প্রথম পর্বে দশ হাজার টাকা বা তারচেয়ে বেশি মূল্যের ওয়ালটন পণ্য কিনে মোবাইল ফোন নাম্বার দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে ২০০ টাকা থেকে এক লাখ টাকা পর্যন্ত ক্যাশ ভাউচার পেয়েছিলেন অংসখ্য ক্রেতা। এরপর একমাস বিরতি গিয়ে চলতি বছরের ১ এপ্রিল থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত চলে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-১। এর আওতায় ওয়ালটন পণ্য কিনে টিভি-ফ্রিজ-এসিসহ নিশ্চিত ক্যাশব্যাক ছাড়াও আমেরিকা ও রাশিয়া ভ্রমণের ফ্রি বিমান টিকিট পেয়েছিলেন চারজন। তারা হলেন শরীয়তপুর জাজিরার কবিরাজকান্দি গ্রামের বাসিন্দা ও পরিবার পরিকল্পনা প্রকল্পের মাঠকর্মী তানজিন সুলতানা নিপু, গাজীপুর কোনাবাড়ীর বাবুল, দিনাজপুর পার্বতীপুরের মাহমুদুল হাসান এবং গাইবান্ধায় বসবাসরত পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী জহুরুল ইসলাম। এরপর গত ১ জুলাই থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের সিজন-২ শুরু করে ওয়ালটন। এবার ওয়ালটন পণ্য ক্রয়ে নতুন গাড়ির ঘোষণা দেয় প্রতিষ্ঠানটি। সিজন-২ এ নতুন গাড়ি পেয়েছেন ছয়জন ক্রেতা। এরা হলেন ঢাকায় কর্মরত কিশোরগঞ্জের পুলিশ কনস্টেবল আরাধন চন্দ্র সাহা, চট্টগ্রাম চান্দগাঁও এর গৃহিণী সীমা শীল, একই জেলার রাঙ্গুনিয়ায় কাপড়ের দোকানি টিশু দাশ, রংপুর জেলার পীরগঞ্জের কৃষক টিটু মিয়া, নরসিংদীর কৃষক আবু তাহের এবং কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার হাজিরগল গ্রামের কলা বিক্রেতা আরজু মিয়া। এছাড়া হাজার হাজার ক্রেতা ফ্রি পেয়েছেন মোটরসাইকেল, ফ্রিজ, টিভি, এসিসহ বিভিন্ন ওয়ালটন পণ্য। এসব না মিললেও ছিল নিশ্চিত ক্যাশব্যাক। দুই সিজনেই ব্যাপক গ্রাহকপ্রিয়তা পাওয়ায় গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের সিজন-৩ শুরু করে ওয়ালটন। এবারও ওয়ালটন টিভি, ফ্রিজ, এসি ক্রয়ে রাখা হয়েছে হাজার হাজার পণ্য ফ্রিসহ নিশ্চিত ক্যাশব্যাক এবং নতুন গাড়ি পাওয়ার সুযোগ। এই দফায় এখন পর্যন্ত একটি গাড়ি পেয়েছেন চুয়াডাঙ্গার চা দোকানি মো. বাবলু হোসেন। আরেকটি গাড়ি পেয়েছে ঢাকার ডেল্টা মেডিকেল কলেজ। উল্লেখ্য, ক্রেতাদের হাতের নাগালে বিক্রয়োত্তর সেবা পৌছে দিতে গ্রাহকদের অন লাইন ডাটাবেইজ তৈরি করছে ওয়ালটন। এর ফলে ওয়ারেন্টি কার্ড বহন বা সংরক্ষণের ঝামেলা পোহাতে হবে না গ্রাহককে। ওই কার্যক্রমে ক্রেতাদের উদ্বুদ্ধ করতে পণ্য কেনার পর তা রেজিস্ট্রেশন করলেই ক্রেতারা পাচ্ছেন ফ্রি পণ্য, নিশ্চিত ক্যাশব্যাক অথবা নতুন গাড়ি। # ক্যাপশন: ওয়ালটন ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের বর্ষপূর্তি উদযাপন উপলক্ষে কেক কাটছেন প্রতিষ্ঠানটির এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ইভা রিজওয়ানা, নজরুল ইসলাম সরকার, হুমায়ূন কবির, এস এম জাহিদ হাসান, ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর আরিফুল আম্বিয়া, সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর গোলাম মুর্শেদ, অপারেটিভ ডিরেক্টর ফিরোজ আলম ও শাহাজাদা সেলিম, অ্যাডিশনাল অপারেটিভ ডিরেক্টর ড. মো. সাখাওয়াত হোসেন, ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ইউনিটের প্রেসিডেন্ট মি. কিম, ব্র্যান্ড ডেভেলপমেন্ট প্রধান চিত্রনায়ক আমিন খানসহ অন্যরা।

অন্যান্য সংবাদ