প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাফরউল্লাহ’র বিচার ও মাহবুব তালুকদারের পদত্যাগ দাবি করেছে ১৪ দল

আবুল বাশার নূরু : ডা. জাফরউল্লাহ চৌধুরীর বিচার ও নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারের পদত্যাগ দাবি করেছে ১৪ দল। বুধবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ১৪ দলের বৈঠক শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান জোটের মুখপাত্র ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম।

নাসিম বলেন, মাহবুব তালুকদার সাংবিধানিক পদে থেকে অসাংবিধানিক কথা বলায় তার দায়িত্ব থেকে সরে যাওয়া উচিত। ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে তার সম্পর্ক আছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। তিনি সেনাবাহিনীর মধ্যে বিভক্তি সৃষ্টি করার অভিপ্রায়ে সেনাপ্রধান সম্পর্কে এ ধরনের বক্তব্য দিয়েছেন। নির্বাচনকে বানচাল করার জন্য যারা ষড়যন্ত্র করছেন, তাদের মধ্যে জাফরুল্লাহ চৌধুরী একজন।’ ১৪ দলের পক্ষ থেকে জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান মোহাম্মদ নাসিম।

নাসিম বলেন, ‘সাংবিধানিক পদে থেকে নির্বাচন কমিশনের গোপনীয় বিষয় নিয়ে প্রকাশ্য কথা বলা সংবিধান পরিপন্থী। মাহবুব তালুকদার সাংবিধানিক পদে থেকে অসাংবিধানিক কথা বলায় তার দায়িত্ব থেকে সরে যাওয়া উচিত।’

ব্যারিস্টার মইনুলের প্রসঙ্গে নাসিম বলেন, ‘ব্যারিস্টার মইনুল কে? তিনি সেই লোক, যিনি ব্ঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরে বিশ্বাসঘাতক মোশতাকের সঙ্গে হাত মিলিয়েছিলেন। পরে তিনি ডেমোক্রেটিক পার্টিও গঠন করেছিলেন। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছিলেন তিনিই। সেই মইনুল আজ বিএনপির প্রিয় ও বিশ্বস্ত লোক হয়েছেন। আর এখন গণতন্ত্রের কথা বলছেন। এটা গণতন্ত্র উদ্ধার করার নয়, অশুভ শক্তি।’

নির্বাচনকে সামনে রেখে মহাজোট ছোট বা আরও বড় করা হবে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, ‘এখনই বলা যাচ্ছে না। প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তই হবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত । স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি যদি হয়, সেটি তিনি দেখবেন জোটের পরিসর বাড়ানো যায় কিনা।’

বৈঠকে দেশের বিভিন্ন স্থানে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ১৪ দল। ২৬ অক্টোবর চুয়াডাঙ্গা এবং ২৯ অক্টোবর ঢাকায় মতিঝিলে সমাবেশ করবে তারা। বৈঠকে ১৪ দলের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সর্বাধিক পঠিত