প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাহবুব তালুকদারের পদত‍্যাগ দাবি করলেন নাসিম

আহমেদ জাফর : সাংবিধানিক পদে থেকে নির্বাচন কমিশনের গোপনীয় বিষয়  নিয়ে প্রকাশ্যে কথা বলা সংবিধান পরিপন্থী। এজন্য নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারের দায়িত্ব থেকে সরে যাওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম। বুধবার (১৭ অক্টোবর) ধানমন্ডি  আওয়ামী লীগের সভাপতি রাজনৈতিক কার্যালয়ে ১৪ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

গত সোমবার নির্বাচন কমিশনের মাহবুব মাহবুব তালুকদার মতের ঐক‍্য  বিরোধ হওয়ায় তিনি সভা বর্জন করেন। এর প্রতিক্রিয়ায় নাসিম বলেন,সাংবিধানিক পদে থেকে নির্বাচন কমিশনের গোপনীয় বিষয়  নিয়ে প্রকাশ্য কথা বলেছেন এটা উচিত না। গোপনীয় বিষয় না রাখতে পারলে তার দায়িত্ব থেকে সরে যাওয়া উচিত ।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী  উদ্দেশ্য করে নাসিম বলেন,  বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সাথে তার সম্পর্ক আছে আমরা জানতে পেরেছি। এদের মত বুদ্ধিজীবী সেনাবাহিনীর মধ্যে বিভক্তি সৃষ্টি করার জন্যই এ ধরনের বক্তব্য দেন। নির্বাচনকে বানচাল করার জন্য যারা ষড়যন্ত্র করছে তাদের মধ্যে জাফরুল্লাহ চৌধুরী একজন। এজন্য তিনি ১৪ দলের পক্ষ থেকে জাফরুল্লাহ বিচারে আওতায় আনার দাবি জানান।

ব্যারিস্টার মঈনুলের প্রসঙ্গে তিনি বলেন,ব্যারিস্টার  মঈনুল কে? ব্যারিস্টার  মঈনুল হলো সেই লোক যিনি  বঙ্গবন্ধু  হত্যার পরে বিশ্বাসঘাতক মোশতাকের সাথে হাত মিলিয়েছেন। পরে তিনি ডেমোক্রেটিক পার্টি গঠন করেছিলেন।  জিয়া ট্রাস্ট  দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছিলেন তিনি। সেই মঈনুল আজ বিএনপির প্রিয় বিশ্বস্ত লোক হয়েছে  । আর  এখন গণতন্ত্রের কথা বলছে এটা গণতন্ত্র উদ্ধার নয় অশুভ শক্তি।

নির্বাচনকে সামনে রেখে মহাজোট ছোট বা আরও বড় করা হবে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিম বলেন, এখনই বলা যাচ্ছে না প্রধানমন্ত্রী সিদ্ধান্ত হবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত । স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি যদি হয় সেটি প্রধানমন্ত্রী ভেবেচিন্তে দেখবেন মহাজোট প্রসার বাড়ানো যায় কিনা।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা আগামী ২৩ অক্টোবর সিলেটে শাহজালাল( রহ:) মাজার জিয়ারতের মধ্য দিয়ে তাদের গণসংযোগ ও আন্দোলন শুরু করবেন এমন প্রশ্নের জবাবে  ১৪ দলের মুখপাত্র বলেন,  আন্দোলন করবে আন্দোলনে জনগণ সাড়া দেবে না। বারবার তারা আন্দোলনের কথা বলে আসছে ঘরে থেকে আন্দোলন হয় না ,তাই ঘরে আছে ঘরে থাক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির শেখ শহিদুল ইসলাম, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, নুরুল আম্বিয়া , শিরিন আক্তার প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ