প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তাড়াশে হজ্ব সেবায় মডেল মওলানা আব্দুস সালাম

জাকির আকন, চলনবিল: ইসলামের গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ হজ্ব পালনে মোয়াল্লেম বা গাইডদের বিরুদ্ধে অসহযোগীতাসহ বিভিন্ন অভিযোগ থাকলেও চলনবিল এলাকায় ব্যতিক্রম মোয়াল্লেম মাওলানা আব্দুস সালাম। হাজীদের সাথে আন্তরিকতা, সার্বক্ষণিক থাকা এবং আবাসিকে থাকা খাওয়ায়সহ সকল সুবিধা সেবা প্রদান করে চলনবিলের তাড়াশ উপজেলার হাজীদের নিকট আস্থা অর্জন করেছে মাওলানা আব্দুস সালাম।

গত ৩ বছরের তাড়াশ উপজেলার প্রায় ৮০ ভাগ হজ্ব যাত্রী হজ্ব পালন করে মওলানা আব্দুস সালামের রাজশাহী হজ্ব ও ওমরাহ গ্রুপ এর মাধ্যমে। উপজেলার হাজীদের সূত্রে জানা যায়, তাড়াশ উপজেলা বি,সি,আই,সির সভাপতি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী মোক্তার হোসেন, শহরের বড় মেশিনারীজ ও ইলেকট্রনিকস ব্যবসাযী হাজী শফিকুল ইসলাম শফি, ব্যাংক কর্মকর্তা আলহাজ্ব আব্দুল আজিজসহ উপজেলার সব শ্রেণির লোক মওলানা আব্দুস সালামএর রাজশাহী হজ্ব ও ওমরাহ গ্রুপ এর মাধ্যমে একাধিক বার হজ্ব পালন করেন ।

উপজেলা বি,সি,আই,সির সভাপতি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী মোক্তার হোসেন জানান, আমরা মাওলানা আব্দুস সালামের হজ্ব সেবায় অত্যন্ত মুগ্ধ । আনসার ভি,ডি,পির (অবঃ) কর্মকর্তা আলহাজ্ব আছের উদ্দিন জানান, হজ্ব পালনে মোয়াল্লেমদের বিরুদ্ধে অসহযোগীতার থাকা খাওয়ায় অসুবিধা দেওয়ার অভিযোগ শুনলেও মাওলানা আব্দুস সালামকে আমার ব্যতিক্রম মনে হয়েছে ।

সংশ্লিস্ট সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালে ৯৩ হজ্ব যাত্রী হজ্ব পালন করে মওলানা আব্দুস সালামের রাজশাহী হজ্ব ও ওমরাহ গ্রুপ এর মাধ্যমে এবং ২জন মোয়াল্লেমের মাধ্যমে ১৮ জন এবং অন্য ২জন কোন হজ্ব যাত্রী পাঠাতে পারেন নি এমনকি একজন মোয়াল্লেমের ৮-৯ জন ২০১৮ সালের জন্য টাকা প্রদান করেও ট্রাভেলস এজেন্সির কারণে যেতে পারেন নি। ফলে এ বছরেই তাড়াশ উপজেলার হজ্বযাত্রীদের ৮০ ভাগই হজ্ব করেছেন মাওলানা সালামের মাধ্যমে।

এ বিষয়ে মাওলানা আব্দুস সালাম জানান, আমার সেবার বিষয়ে আমি বলতে চাই না। আমি তাড়াশ উপজেলাসহ চলনবিল এলাকার মানুষের আস্থা ও ভালবাসা পেয়েছি তাতেই সন্তুষ্ট এবং ২০১৯ সালে আমি ২শতাধিক লোককে পবিত্র হজ্ব পালন করার জন্য নিয়ে যাব ইনশাল্লাহ ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ