প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নারী-পুরুষ একযোগে কাজ করতে হবে : ইনু

দেবব্রত দত্ত : লিঙ্গ বৈষম্য দূর করতে হলে আগে দরকার নারী-পুরুষ একযোগে কাজ করতে হবে। ৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে ও নারী পুরুষ একযোগে দেশ স্বাধীন করেছে। গনতন্ত্র যদি অর্থবহ করতে হয় তা হলে আগে দরকার নারী বৈষম্য দূর করা। জেলা উপজেলায় এখনও প্রায় সহশ্রধিক নারী সাংবাদিকরা বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় কাজ করচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি রুমে আন্তজার্তিক গ্রামীন নারী দিবস উপলক্ষে উইমেন জার্নালিস্ট, বাংলাদেশ-ডব্লিউজেএনবি এবং মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্দ্যেগে “অর্থনীতিতে গ্রামীন নারীর অবদান” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, বিশেষ অতিথি ছিলেন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের শাহিনা-আরা ও বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের মহা পরিচালক শাহ আলমগীর। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দৈনিক আমাদের অর্থনীতি পত্রিকার সম্পাদক নাসিমা খান মন্টি, জাকিয়া আহমেদ, ফাহমিদা আক্তার, নাসিমা হক মেনু ,উম্মুল আরা সুইটি, প্রমুখ। মূল লিখিত প্রবন্ধ পাঠ করেন নিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রধান বার্তা সম্পাদক শাহনাজ মুন্নী। সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় পেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন। অনুষ্ঠানটি পরচালনা করেন আঙ্গুর নাহার মন্টি।

বক্তারা বলেন,শ্রমশক্তি জরীপের হিসাব অনুযায়ী দেশের ১ কোটি ২০লাখ শ্রমিকের মধ্যে ৭৭ শতাংশ গ্রামীন নারী। বাংলাদেশের অর্থনীতিতে নারীর মজুরীবিহীন এবং স্বীকৃতিহীন কাজের অর্থনৈতিক মূল্য নিরুপনের উদ্দেশ্য এবং জিডিপির মানদন্ডে তার তুলনা করার উদ্দেশ্যে সিপিডি এবং মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন একটি গবেষনা করে।

জাতীয় অর্থনীতিতে নারীর অবদান

১. ১৫ বছর বা তার বেশি বয়সের একজন নারী সমবয়সী একজন পুরুষের তুলনায় প্রায় ৩ গুণ এমন কাজে নিয়োজিত থাকে যা জিডিপিতে ধরা হয় নি।

২. একজন নারী মজুরী বিহীন কাজে ৮ প্রতিদিন গড়ে প্রওায় ৮ ঘন্টা এবং একই কাজে একজন পূরুষ প্রতিদিন ২.৫ ঘন্টা সময় ব্যয় করে।

৩. একজন নারী প্রতিদিন গড়ে ১২.১টি মজুরীবিহীন কাজ করে যা জিডিপিতে যোগ করা হয় না। পুরুষের ক্ষেত্রে এ ধরনের কাজের সংখ্যা ২.৭টি।

৪. নারীর অবমূল্যায়িত কাজের অংশ জাতীয় অর্থনীতিতে যোগ করতে পারি, তা হলে জাতীয় উৎপাদনের নারীর অবদান ২৫ শতাংশ থেকে বেড়ে ৪০ শতাংশ হয়ে যাবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ