প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে মেরিনাররা: নৌমন্ত্রী

তরিকুল ইসলাম সুমন: দেশের সকল মেরিনাদের একই ছাতার নিচে আনাসহ সকল সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য মেরিনারদের নিজস্ব ভবন ‘বিএমএস টাওয়ার’ এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। রোববার রাজধানীর বারিধারায় বহুতলবিশিষ্ট এই ভবন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান। এটি বাংলাদেশ মেরিনার্স সোসাইটির উদ্যোগে নির্মিত হচ্ছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নৌ পরিবহণমন্ত্রী বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে মেরিনারা। সরকার এদের সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য কাজ করছে।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের নদনদীর উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে কর্ণফুলি শিপ বিল্ডার্স। এ প্রতিষ্ঠান বাংলাদেলে নদী খননের জন্য বেশ কিছু ডেডার তৈরি করেছে। এক কথায় শিপ বিল্ডার্সের মধ্যে এ প্রতিষ্ঠান উল্লেখ যোগ্য। এরই কর্ণধার হলেন এম এ রশিদ। নাবিকদের নানা ধরণের সুবিধা নিশ্চিত করাসহ বিভিন্ন সময়ে সহায়তা দিয়ে থাকেন। বর্তমানে মেরিনার্স সোসাইটি কর্মসংস্থান, বিদেশে আটক মেরিনারদের দেশে প্রত্যাবর্তন, মেরিনারদের বিপেদে আর্থিক সহায়তা, ফিলিপাইনে আটক মেরিনারদের দেশে প্রত্যাবর্তন ও মেরিনারদের উচ্চ শিক্ষায় বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলেও জানান নৌ মন্ত্রী।

মেরিনার্স সোসাইটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার এম এ রশিদ বিভিন্ন সময়ে সোসাইটির কল্যাণমূলক কাজের সংক্ষিপ্ত তথ্য তুলে ধরে বলেন, আগামী দিনগুলোতে মেরিনারদের সুখে-দুঃখে আমরা পাশে থাকবো। বিশেষ করে মেরিনারদের জন্য নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও কর্মস্থলে নানা হয়রানির বন্ধে সোসাইটি কাজ করবে। মেরিনারদের বেশ কিছু সমস্যা তুলে ধরে তা সমাধানে সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন। বিশেষ করে মেরিনারদের জন্য নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও কর্মস্থলে নানা হয়রানির বন্ধে সোসাইটি কাজ করবে বলেও জানান তিনি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জানানো হয়, মেরিনার্স সোসাইটির বর্তমান দেড় হাজার সদস্য ও আগামীতে যারা এ সোসাইটির সদস্য হবেন তারা এ ভবনের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা পাবেন। নির্মিতব্য এই ভবনে থাকবে-পাঠাগার, কনফারেন্স হল, মিটিং রুম, ট্রেনিং রুম, অফিসরুম, ব্যায়ামাগার, সুইমিংপুল, বিনোদন সেন্টার, শপিং সেন্টার, রেস্টহাউজ, রেস্টুরেন্ট, স্টুডিও-অ্যাপার্টমেন্ট, মেরিটাইম মিউজিয়াম, হেলথ সেন্টার, হেল্প সেন্টার, উপাসনালয় ও কারপার্কিং। ছাদের উপরে থাকবে মনোরম সিটিভিউ গ্রিনগার্ডেন ও পেডেস্টাল-বাইনোকুলারসহ অবজারভেশন ডেক। প্রতিটি মেরিনার্স অর্গানাইজেশনের জন্য এই কমপ্লেক্সে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধাসহ নির্ধারিত আয়তনের অফিস স্পেস থাকবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মেরিনার্স সোসাইটির সিনিয়র সহ-সভাপতি মোখলেসুর রহমান ঢালী, সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার রইসউদ্দীন, আজীবন সদস্য এম এ বাতেন, নৌপরিবহন সচিব আবদুস সামাদ, পররাষ্ট্র সচিব রিয়ার এডমিরাল (অব.) খুরশিদ আলম, নৌপরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর সৈয়দ আরিফুল ইসলামসহ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও বিপুল সংখ্যক মেরিনার উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মেরিনার্স সোসাইটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার এম এ রশিদ।

উল্লেখ্য, বিএমএস টাওয়ার নির্মাণের জন্য ১০ কাঠার এ প্লটটি ইঞ্জিনিয়ার এম এ রশিদ অনুদান হিসেবে মেরিনারদের দিয়েছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ