প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘বর্তমান জাতীয় ফুটবল দল অন্যতম সেরা’

প্রথম আলো: বাংলাদেশের বর্তমান জাতীয় ফুটবল দল ইতিহাসের অন্যতম সেরা! বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন যুক্তি দিয়ে বুঝিয়েছেন কেন বিপলু-সুফিল-বিশ্বনাথ-বাদশাদের এই দলটা বাংলাদেশের ফুটবলের অন্যতম সেরা।

সদ্য সমাপ্ত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে ফিলিস্তিনির বিপক্ষে হেরে ফাইনাল খেলা হয়নি বাংলাদেশের। আর সব মিলিয়ে বাংলাদেশের অর্জন তিন ম্যাচ খেলে এক জয়। তবে বাংলাদেশের ফুটবলারদের লড়াকু পারফরমেন্সের প্রশংসা করেছেন সবাই। তাই বলে কি এটাই বাংলাদেশের ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা দল? বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতির দাবি এমনটাই।

কাজী সালাউদ্দিনের মনে কোনো সন্দেহই নেই। এটি বাংলাদেশের ইতিহাসের অন্যতম সেরা দল। নিজের সময়ের জাতীয় দল কিংবা ২০০৩ সালের সাফজয়ী জাতীয় দল—সব বিবেচনা করেই তিনি জেমি ডের দলটিকে ইতিহাসের অন্যতম সেরা বলতে চান।

মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৮ সাফজয়ী দলের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সালাউদ্দিনের বক্তব্য খুব পরিষ্কার, ‘বাংলাদেশ জাতীয় দল শেষ দুটো ম্যাচ যা খেলেছে, জাতীয় দলের সেরা ম্যাচ। তারা অনেক উন্নতি করেছে। একটা টুর্নামেন্টের কথা মনে পড়ে। স্বাধীনতার পরে বাংলাদেশের প্রথম দলটা ১৯৭২ সালে মারদেকা কাপে থাইল্যান্ডের সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র। এর পরে ২০০৩ সালে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। এই সব দলের মধ্যে এই দলটা অন্যতম সেরা। তখনকার ফুটবল আর আজকের ফুটবলের মধ্যে অনেক পার্থক্য। এই দলটার ভবিষ্যৎ আছে।’

এবারের বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপকে বাংলাদেশের ইতিহাসে ফুটবলের সেরা আয়োজন বলে মনে করেন বাফুফে সভাপতি, ‘এবারের বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ দেশের ফুটবল ইতিহাসের সেরা টুর্নামেন্ট। আজ পর্যন্ত বাংলাদেশের কোনো টুর্নামেন্টেই সবগুলো জাতীয় দল খেলে নাই। আগাখান গোল্ডকাপে আমরা যেসব দলগুলোর সঙ্গে খেলতাম সেগুলো জাতীয় দল নয়। কোরিয়ার সঙ্গে ২-১ গোল, ২-৩ গোলে হারতাম। লাল দলের হয়ে আমি নিজেই দুটো গোল করেছিলাম। তখন কোরিয়ার জাতীয় দল খেলে নাই, খেলেছে বিশ্ববিদ্যালয় দল। থাইল্যান্ডেরও জাতীয় দল ছিল না। এবারই প্রথম সব জাতীয় দল খেলেছে। যারা র‍্যাঙ্কিংয়ে আমাদের চেয়ে অনেক এগিয়ে।’

এ ছাড়া আগের দিনের ফুটবলের সঙ্গে বর্তমান সময়ের ফুটবলের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ‘আগেকার দিনে খুব ভালো ফুটবল ছিল। আসলে আগেকার দিনে দর্শক ভালো ছিল। কিন্তু এখন অনেক ভালো ফুটবল খেলা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ