প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দেড় মিনিটের পথ পেরোতে লাগছে ৩০ ঘণ্টা

সমকাল: একে মহাসড়কে নানা ব্যস্ততা, এর ওপর হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা সন্নিকটে। এরই মধ্যে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়ক সংস্কারের নামে চলছে খোঁড়াখুঁড়ির কাজ। উপজেলা সদরের কাছে গুটুদিয়া মাঝের রাস্তা নামক স্থানে গত দুই মাসেও অর্ধ কিলোমিটার সড়ক সংস্কারের কাজ শেষ করতে পারেনি সংশ্নিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। ওই সড়কটুকু পার হতে দেড় মিনিট সময় লাগলেও এখন লাগছে ৩০ ঘণ্টারও বেশি। জনদুর্ভোগের অন্ত নেই।

এলাকাবাসী জানায়, খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে ডুমুরিয়া উপজেলার কাছে গুটুদিয়া মাঝের রাস্তা নামক স্থানে দুই মাস ধরে চলছে সংস্কারের নামে খোঁড়াখুঁড়ির কাজ। সংশ্নিষ্ট কাজে নিয়োজিতরা অত্যন্ত ধীরগতিতে কাজ করছে। এ ছাড়া তিন দিন ধরে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টির কারণে পথচারীদের চলাচলে আরও সমস্যা হচ্ছে। সড়কে যানজট ক্রমেই বাড়ছে। সড়কের অর্ধেক অংশ এক্সক্যাভেটর দ্বারা খুঁড়ে সেখানে দেওয়া হয় বালু। ফলে সড়কজুড়ে কাদার সৃষ্টি হয়েছে বলে স্থানীয় ও পথচারীদের অভিযোগ। সড়কের অপর অংশে অতি স্বল্প জায়গা দিয়ে দ্বিমুখী যানবাহন চলাচলে যানজট বেড়েই চলেছে।

খুলনা-সাতক্ষীরার যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাকচালক মিলন অধিকারী, মুজিবুর রহমানসহ একাধিক রোগীবাহী সরকারি-বেসরকারি অ্যাল্ফু্বলেন্স, বাস, মাইক্রোবাস, ট্রাক, ডাম্পার ও তেলবাহী গাড়ির চালকরা বলেন, শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে শনিবার দুপুর ৩টা পর্যন্ত প্রায় ২১ ঘণ্টা যানজটের কবলে পড়েছেন। অবশেষে গাড়ি বন্ধ করে সারিবদ্ধ হয়ে তারা গন্তব্যে পৌঁছানোর অপেক্ষায় রয়েছেন। তাছাড়া সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবী, স্কুল- কলেজের শিক্ষার্থীসহ পথচারীদের দুর্ভোগের অন্ত নেই। মাত্র অর্ধ কিলোমিটার পথ পেরোতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে। তবে ঘটনাস্থলে নিজেকে সংশ্নিষ্ট কাজের ঠিকাদার পরিচয়দানকারী হুমায়ুন কবির বলেন, এই অর্ধ কিলোমিটার সড়কের মাটি ভালো নয় বলে কাজে বেশি সময় লাগছে। তবে পূজার আগে কাজ সম্পন্ন করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহনাজ বেগম জানান, ডুমুরিয়া উপজেলার অভ্যন্তরে সড়ক সংস্কারের নামে জনদুর্ভোগ বেড়েছে। কাজের কোনো অগ্রগতি নেই। যানজটের কারণে মানুষ অতিষ্ঠ।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খান আলী মুনসুর বলেন, সড়ক সংস্কারের কাজ করা হচ্ছে সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীনে। তবে কারা, কীভাবে কাজ করছে সেটি উপজেলা পরিষদকে কেউ অবহিত করেনি। কাজের অগ্রগতি ও যানজটের বিষয়টি খুলনা জেলার আইন- শৃঙ্খলার সভায় একাধিকবার বলা সত্ত্বেও কোনো কাজ হচ্ছে না বলে তিনি অভিযোগ করেন।

এ ব্যাপারে খুলনা সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী তাপসী দাসের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ