প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে অলি
উদ্যোগ শুভ তবে নতুন কিছু না

সাব্বির আহমেদ : জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে স্বাগত জানিয়ে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) চেয়ারম্যান কর্ণেল (অব.) অলি আহমদ বলেছেন, শুভ উদ্যোগ। তবে নির্বাচনের আগে এগুলো নতুন কিছু না। নির্বাচন আসলেই মেরুকরণ হয়। সব দলই অন্য দলের সঙ্গে জোট করতে চায়। যদিও শুরুতেই ঐক্যফ্রন্টের এক পক্ষ রণভঙ্গ দিয়েছে। আশা করি অন্যরা রণভঙ্গ দেবেন না। জাতিকে হতাশ করবেন না।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সূচনা নিয়ে এই প্রতিবেদককে তিনি এসব কথা বলেন।শনিবার বিএনপিকে সঙ্গে নিয়ে ড.কামাল হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত হয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। যেখানে শুরু থেকে থাকলেও শেষমুহুর্তে কেটে পড়ে বিকল্প ধারার সভাপতি অধ্যাপক এ কি এম বদরুদোজ্জা চৌধুরী।

ভোটের রাজনীতিতে এ জোট কতটুকু কার্যকর জানতে চাইলে অলি বলেন, বিএনপি জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যাওয়ার আগে আমার সঙ্গে কোনও আলোচনা করেনি। জোট করার পরই বিশদলের সভায় এসব নিয়ে আলোচনা করেছে বিএনপি। আমরাও আমাদের পূর্ণ সমর্থনের কথা বলেছি। জোট হোক আর দলই হোক- জনগণের কাছে যাদের ভিত্তি নেই, তাদের নিয়ে নির্বাচনে গেলে সুফল হবে না। অতীতেও শুভ হয়নি। প্রতীক নিয়ে পাশ করা যায় না। নিজের এলাকায় গ্রহণযোগ্যতা থাকতে হবে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে বিশ দলে কোনও প্রভাব পড়বে কি না- জানতে চাইলে অলি আহমেদ, এটা নিয়ে জোটে কোনও প্রভাব পড়বে না। আমাদের কোনও আপত্তি নেই।

ঐক্যফ্রন্টে বিএনপি জামায়াতে ইসলামীকে কৌশলে সঙ্গে রাখছে কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন বিএনপি কি চিন্তা করছে- তা আমার জানার বিষয় নয়। কার মনের ভেতর কি আছে- জানি না। এলডিপি কি চিন্তা করছে, সেটা আমি জানি।

‘যাদের বিশদলের মধ্যে স্বার্থের টান রয়েছে, তারাই ঐক্যের সমালোচনা করছেন’- এমন কথা জবাবে অলি বলেন, আমি তো কারো মুখে কুলুপ দিতে পারি না। প্রত্যেকের মতামত দেওয়ার অধিকার রয়েছে। যে যেভাবে চিন্তা করে, সেভাবে স্বার্থ হাসিল করবে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অধীনে থেকে বিএনপি যে কর্মসূচি দেবে, আমরা তা পালন করব।

‘সংকটের সমাধান না হলে দেশে রক্তপাত হবে’- তার এমন মন্তব্যও পরিস্কার করেন অলি। বলেন, রক্তপাত এই না যে, আমি ও আমার দলের লোকেরা মারামারি করব। আমি বুঝাতে চেয়েছি, ২০১৪ ও ২০০৯ সালের মতো নির্বাচন আর এ দেশে হবে না। নির্বাচনে এবার কেউ কাউকে ছাড় দেবে না। প্রত্যেকে নিজের জায়গায় অনড় রয়েছে। সুতরাং লাইন ভঙ্গ করলে সংঘর্ষ অনিবার্য। আলোচনার মাধ্যমে এ অবস্থার পরিবর্তন সম্ভব। সকলে লালসার উর্ধে উঠে জনমতকে প্রাধান্য দিতে হবে।

নির্বাচনকালীন সরকারে থাকা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গত নয় বছরে কোনও কথা হয়নি। সরকারের কারোর সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হয়নি।