প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মডেলকে দিয়ে মাসাজ করান, চুমু খান সুভাষ ঘাই!

ডেস্ক রিপোর্ট : মিটু আন্দোলনের মধ্যে আবারও বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন বলিউড পরিচালক সুভাষ ঘাই। সামাজিক মাধ্যমে তার কুকীর্তি ফাঁস করার পাশাপাশি শনিবার মুম্বাইয়ের ভারসোভা থানায় তার নামে লিখিত একটি অভিযোগও দায়ের করেছেন অভিনেত্রী-মডেল কেট শর্মা।

কেটের অভিযোগ, সুভাষ ঘাই তাকে জড়িয়ে ধরে জোর করে চুমু খাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। তাকে দিয়ে শরীরও মাসাজ করিয়েছিলেন সুভাষ।

আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়, লিখিত অভিযোগে কেট জানিয়েছেন, এবছরই ৬ অগস্ট ওই ঘটনা ঘটে। এদিন রাতে পরিচালক সুভাষ ঘাই তাকে বাড়ির পার্টিতে নিমন্ত্রণ করেছিলেন। বাড়িতে পরিচালক ছাড়াও ছিলেন আরও ছয় জন। আচমকাই সুভাষ ঘাই তাকে মাসাজ করতে বলেন। প্রথমে নিজের কানকেই যেন বিশ্বাস করতে পারছিলেন না কেট। রাজিও হননি। কিন্তু কর্মজগতে সুভাষ ঘাইয়ের অভিজ্ঞতা এবং বয়সকে সম্মান জানাতে প্রস্তাবে রাজি হয়ে যান। দু-তিন মিনিটের জন্য তাকে মাসাজ দেন ওই মডেল।

তিনি অভিযোগে আরও বলেন, ‘উপস্থিত অন্যদের সামনেই তাকে মাসাজ দিতে বাধ্য হই। তারপর হাত ধুতে বাথরুমে যাই। সেখানেও আমার পিছু নিয়ে হাজির হয়ে যান পরিচালক। জানান, তার কিছু বলার আছে। তারপরই আমাকে জড়িয়ে ধরেন, চুমু খাওয়ার চেষ্টা করতে থাকেন। আমি তার হাত ছাড়িয়ে বাথরুম থেকে বার হওয়ার চেষ্টা করি। তখন হুমকি দিয়ে বলেন, যদি তার সঙ্গে রাত না কাটাই তাহলে আমাকে কাজের সুযোগ দেবেন না।’

এই অভিযোগ প্রতিক্রিয়ায় এক টুইটে সুভাষ ঘাই বলেন, ‘মিটু-র আমিও একজন সমর্থক। কেউ যদি এর সুযোগ নিয়ে আমার বদনাম করতে চান, আমার কাছে সেটা খুবই দুঃখজনক। যাইহোক আমার আইনজীবীরাই এর উত্তর দেবেন।’

তবে এই প্রথম নয়, সুভাষ ঘাইয়ের নামে এর আগেও যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে বলিউডে। সম্প্রতি সুভাষ ঘাইয়ের নামে অন্য এক মহিলাও ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি জানিয়েছিলেন, সুভাষ ঘাই তার পানীয়ে কিছু মিশিয়ে তাকে ধর্ষণ করেছিলেন।

৭৩ বছরের পরিচালক ওই অভিযোগও অস্বীকার করে টুইট করেছিলেন, ‘মিটু মুভমেন্টে যেকোনো কারও নাম জড়িয়ে দেওয়াটা এখন একটা ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। সত্যতা যাচাই না করেই অতীতের কিছু ঘটনা হঠাৎই সামনে নিয়ে আনছেন কেউ কেউ। আমার বিরুদ্ধে এই ধরনের অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।’

নানা পাটেকারের বিরুদ্ধে অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্তের অভিযোগ দিয়ে শুরু বলিউডে শুরু হয় #মিটু আন্দোলন। তারপর একের পর এক বড় বড় অভিনেতাদের নাম জড়িয়ে যাচ্ছে মিটু-তে। নানা পাটেকার, অলোক নাথ, কৈলাস খের, সাজিদ খান, বিকাশ বহেল এমনকি অমিতাভ বচ্চনেরও বিরুদ্ধে যৌন হয়রানীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। সেই তালিকাকেই আরও দীর্ঘ করলেন সুভাষ ঘাই। পরিবর্তন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ