প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাগুরায় ৬৫০টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা
শেষ মুহুর্তে রং তুলির কাজে ব্যস্ত প্রতিমা শিল্পীরা

রক্সী খান, মাগুরা প্রতিনিধি : সনাতন ধার্মাবলম্বীদের বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার বাকি আছে আর মাত্র কয়েকদিন। প্রতিমা গড়ার শিল্পীরা শেষ প্রস্তুতি হিসেবে প্রতিমা সাজাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। এ বছর মাগুরা জেলার চার উপজেলায় প্রায় ৬৫০টি মন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে।

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বাসুদেব কুণ্ডু জানান, এ বছর জেলার চার উপজেলার মধ্যে মাগুরা সদরে ২২৫টি, শালিখায় ১৬২টি মহম্মদপুরে ১২৩টি এবং শ্রীপুর উপজেলায় ১৩৮ মণ্ডপে এ পূজা অনুষ্ঠিত হবে। আলোক সজ্জা ও প্যান্ডেল সাজ সজ্জার পাশাপাশি আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনী, আনসার সদস্যসহ স্বেচ্ছসেবকরা তদাররিকর মাধ্যমে সার্বিক নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবেন। এ ছাড়া ভ্রাম্যমাণ আদালত ও জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে আইন শৃঙ্খলার বিষয়টি দেখভাল করা হবে।

জেলা বিভিন্ন মন্ডপ ঘুরে দেখা গেছে প্রতিমা শিল্পিরা মনের মাধুরী মিশিয়ে মা দুর্গাকে সাজাচ্ছেন। প্রতিটি মণ্ডপেই ইতিমধ্যে রং তুলির আচড় কাটতে সময় অতিবাহিত করছেন শিল্পীরা। মন্ডপগুলোতে আলোক সজ্জার পাশপাশি এ উপলক্ষে মেলায় আসতে শুরু করেছেন দোকানীরা।

মাগুরা সদর উপজেলার বাটিকাডাঙ্গা গ্রামের প্রতিমা শিল্পী মুকুল কুমার বৈদ্য জানান, এ বছর তিনি টাঙ্গাইল, রাজবাড়ী, মাগুরাসহ মোট ৭টি মন্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ করছেন। প্রতিটি মন্ডপে প্রতিমা তৈরির জন্য তিনি পারিশ্রমিক নিচ্ছেন ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা। দীর্ঘ ৫০ বছর তিনি প্রতিমা তৈরির কাজ করে আসছেন।

রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দী উপজেলার প্রতিমা শিল্পী বিরোন্দ্র নাথ বিশ্বাস জানান, দীর্ঘ বিশ বছর ধরে জেলা ও জেলার বাইরে প্রতিমা গড়ার কাজ করে থাকেন। এ বছর তিনি মাগুরার শ্রীপুর উপজেলাসহ ১৭টি পন্ডপে প্রতিমা তৈরি করছেন। তিনি জানান, প্রতিটি প্রতিমা তৈরির জন্য পারিশ্রমিক হিসেবে ১৫ থেকে ২৫ হাজার টাকা পারিশ্রমিক পেয়েছেন।

এ বিষয়ে মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম জানান, শান্তিপূর্ণভাবে পূজা উৎসব উদযাপন করার জন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত