প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দায়িত্বশীলরা আইন মানলে সাধারণ মানুষও মানবে: ডিএমপি কমিশনার

সমকাল: সমাজের দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা আইন মানলে সাধারণ মানুষও আইন মেনে চলবে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

শনিবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ট্রাফিক সচেতনতামূলক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এ সময় ডিএমপি কমিশনার বলেন, আইন না মানার সংস্কৃৃতি হলো সবচেয়ে বড় সমস্যা। রাস্তায় কেউ আইন মানতে চান না। সড়ক দুর্ঘটনা রোধে যানচালক, মালিক ও পথচারীদের দায়িত্ব রয়েছে। সবাই সচেতন হলে ট্রাফিক শৃঙ্খলা ফেরানো সম্ভব।

ডিএমপি ট্রাফিক বিভাগ আয়োজিত ওই সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন জনপ্রিয় সাহিত্যিক ও শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। আলোচক ছিলেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা অধ্যাপক ম. তামিম, নগর পরিকল্পনাবিদ স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন, সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ ও বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ফারুক তালুকদার সোহেল। এতে সভাপতিত্ব করেন ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগের অতিরিক্ত কমিশনার মীর রেজাউল আলম। অনুষ্ঠানের শুরুতেই ‘ট্রাফিক গাইড বুক’ নামে একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ট্রাফিক শৃঙ্খলা একটি জাতির সভ্যতার প্রতীক। সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে পুলিশ দিনরাত কাজ করছে। আন্তর্জাতিক নিয়মে একজন মানুষ দিনে আট ঘণ্টা কাজ করেন। বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যরা ১২ থেকে ১৪ ঘণ্টা দায়িত্ব পালন করেন। সব ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ উপেক্ষা করে ট্রাফিক পুলিশকে দায়িত্ব পালন করতে হয়। ট্রাফিক শৃঙ্খলা ফেরাতে ভৌত অবকাঠামোগত উন্নয়নও একান্ত জরুরি।

প্রধান বক্তা ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, একটি দেশের উন্নয়নের পরিচয় হলো সে দেশের ট্রাফিক ব্যবস্থা। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ফলে রাস্তায় দিন দিন গাড়ি বাড়ছে, বাড়ছে যানজট। এখন সময় এসেছে এগুলো নিয়ন্ত্রণ করার। সবাইকে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে আইন মানতে হবে।

সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন চিত্রনায়ক ফারুক আহমেদ, জায়েদ খান, রিয়াজ, অভিনেতা আহমেদ শরীফ, নাদের চৌধুরী, ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদ, বাংলাদেশ স্কাউটের জাতীয় কমিশনার সরোয়ার মোহাম্মদ শাহরিয়ার ও সরকারি বিজ্ঞান কলেজের অধ্যক্ষ বনমালী ভট্টাচার্য।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, পরিবহন মালিক-শ্রমিক নেতা, সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিসহ ডিএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। সমাবেশের পর অতিথি ও শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটি ট্রাফিক সচেতনতামূলক শোভাযাত্রা হয়। পরে যাত্রী ও পথচারীদের মাঝে ফুল ও ট্রাফিক সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ