প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৩ কোটি মার্কিন নাগরিক অর্থাভাবে ছুটিতে বিদেশ যেতে পারেন না

রাশিদ রিয়াজ: মার্কিন অর্থনীতির পিরামিডের শীর্ষে যাদের অবস্থান অর্থাৎ ধনীরা ভাল থাকলেও মধ্যবিত্তদের অনেকেই অর্থ সংকটে ছুটিতে দেশের বাইরে বেড়াতে যেতে পারেন না। এদের সংখ্যা ৩৩ মিলিয়ন। ওয়ালেট হাব’এর শীতকালীন ভ্রমণ নিয়ে এক সমীক্ষা বলছে ৭৮ ভাগ পূর্ণকালীন কর্মীরাও বেতন পান পে-চেকের মাধ্যমে যাদের খন্ডকালীণ কর্মী হিসেবেও বিবেচনা করা হয় না। বেকারত্বের হার নিম্ন বলা হলেও মার্কিন মুল্লুকে গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে অধিকাংশই কর্মহীন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই স্ত্রীর সঙ্গে জীবন যুদ্ধে টিকে থাকার লড়াইয়ে ব্যস্ত এমন মধ্যবিত্তরা বরং নিম্নবিত্তে পরিণত হচ্ছে। দু:খজনক হলেও সত্যিই প্রতিদিন যুক্তরাষ্ট্রে তারা দারিদ্রের নিগড়ে বন্দী হয়ে পড়ছেন এবং সুদের উচ্চ হার তাদের ঘুমকে বিঘ্নিত করছে।

ফ্লোরিডা স্টেট ইউনিভার্সিটির রিসর্ট এন্ড ভ্যাকেশন রেন্টাল ম্যানেজমেন্টের পরিচালক মার্ক এ বন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবিত্তদের কেউ যদি বিদেশে বেড়াতে যেতে চায় তাহলে তাদের সম্পদ বিক্রি ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। তাই অবকাশের সময় একাকি কেটে যায় অনেকের। ক্যালিফোর্নিয়ার ডেইলি স্কারামেন্টো বি বলছে ৯০ লাখ বয়স্ক আমেরিকান খেয়ে পড়ে বেঁচে থাকতেই হিমশিম খাচ্ছেন যারা কার্যত ক্ষুধার ঝুঁকিতে রয়েছে। ফ্লোরিডাতেই ৬০ বছরের উপর বয়স এমন সাড়ে ৭ লাখ মানুষের খাদ্য সহায়তা প্রয়োজন। প্রতিমাসে ১০ কোটি মার্কিন নাগরিক সরকারি সহায়তা পেলেও তা পর্যাপ্ত নয়।

আপেক্ষিকভাবে ফেডারেল রিজার্ভ পরিস্থিতি বা মার্কিন অর্থনীতির গতি বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে মনে হলেও ওই সম্পদের মালিকানা গুটিকয়েক মানুষের হাতে ঘুরপাক খাচ্ছে। কিন্তু অধিকাংশ মার্কিন নাগরিক নিশ্চুপ থাকলেও মনে করছেন ফেডারেল রিজার্ভ ব্যবস্থাপনা ভবিষ্যতের ঋণখেলাপি প্রজন্ম তৈরি করছে। একই সঙ্গে প্রতিদিন জাতীয় ঋণের পরিমাণ বাড়ছে, নাগরিকদের ওপর কর প্রদানে জোরপূর্বক ব্যবস্থা আঁটসাঁট হচ্ছে এবং সরকার আরো ক্ষতিকর হয়ে উঠছে। এ্যাক্টিভ পোস্ট

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ