Skip to main content

শূন্য রানেই ইনিংস ঘোষণা দু’দলের!

স্পোর্টস ডেস্ক : প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে চারদিনের ম্যাচে হারহামেশাই রেকর্ড হয়। কিন্তু মাঠে না নেমেই যদি ইনিংস ঘোষণা করা হয় তবে বিষয়টি কেমন লাগবে? তাও আবার একই ম্যাচের দুই দলই। হ্যাঁ, ঠিক এরকমই ঘটনা ঘটেছে নিউজিল্যান্ডের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট প্ল্যাঙ্কেট শিল্ডে। যেখানে মাঠে নামেনি কেউই, না ফিল্ডিংয়ে না ব্যাটিংয়ে। তার আগেই ইনিংস ঘোষণা! এক দলের এমন ঘটনার পর প্রতিপক্ষ দলও বেছে নিলো একই পথ। তবে শূন্য রানে এক ইনিংস ঘোষণা করলে এই ম্যাচে জয়-পরাজয় নিষ্পত্তি হয়েছে। সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্ট ও ক্যান্টাবুরির মধ্যেকার প্রথম শ্রেণির ম্যাচের দুই ইনিংস দুই দল শূন্য রানে ঘোষণা হওয়ার পরও সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্ট ১৪৫ রানে ম্যাচ জিতেছে। শেষ ব্যাটসম্যান অ্যান্ড্রু হ্যাজেলডাইন ইনিংসের একেবারে শেষ বলে আউট হন। তখনও সেন্ট্রালের চেয়ে ১৪৫ রানে পিছিয়ে ক্যান্টারবুরি। শেষ উইকেটে হ্যাজেলডাইন ও উইলিয়ামস জুটি গড়ে দলের হার এড়ানোর চেষ্টা করলেও তা পারেননি।। চার দিনের ম্যাচে প্রথম দিন সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্ট ৭ উইকেটে ৩০১ রান তোলে। কিন্তু পরের দুই দিন বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ায় নিশ্চিত ড্রয়ের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছিল ম্যাচ। কিন্তু উইলেম লুডিকের সেঞ্চুরিতে শেষ দিনে স্কোরে আর ৫১ রান যোগ করে ৩৫২ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে সেন্ট্রাল। ম্যাচে উত্তেজনা ফেরাতে ক্যান্টারবুরি ব্যাটিংয়ে নামার আগেই শূন্য রানে ঘোষণা করে তাদের প্রথম ইনিংস। একই পথে হাঁটে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টও। দ্বিতীয় ইনিংসে তারা শূন্য রানে ইনিংস ঘোষণা করলে জয়ের জন্য ক্যান্টারবুরির লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৫৩ রান। জয় যে সম্ভব নয়, সেটা নিশ্চিতই ছিল। ক্যান্টারবুরি দ্বিতীয় ইনিংসে নেমেছিল ড্রয়ের লক্ষ্যে। কিন্তু সেটাও সম্ভব হয়নি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট শূন্য রানে জোড়া ইনিংস ঘোষণা এবারই প্রথম নয়। এর আগে ২০১৩ সালের কাউন্টি ক্রিকেটেও ঘটে শূন্য রানে জোড়া ইনিংস ঘোষণার ঘটনা। এমনকি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও দেখা গেছে এরকম ঘটনা। তবে মাত্র একবারই এ ধরণের ঘটনা ঘটেছে। ২০০০ সালে সেঞ্চুরিয়নে দক্ষিণ আফ্রিকা-ইংল্যান্ড ম্যাচে ঘটেছিল জোড়া ইনিংসে শূন্য রানে ইনিংস ঘোষণার। ক্রিকইনফো