প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কোন উপায় নেই, ঘুরে দাঁড়াতেই হবে নেতাকর্মীদের দুদু

শিমুল মাহমুদ: নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ও কৃষকদলের সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন,‘মিথ্যা ও সাজানো মামলায় আমাদের নেতাকর্মীদেরকে যেভাবে গ্রেফতার করা হচ্ছে, এখন আমাদেরকে ঘুরে দাঁড়াতেই হবে। ঘুরে দাঁড়ানো ছাড়া কোন উপায় নাই, যদি দাঁড়াতে না পারি মায়ের কাছে অপরাধী হয়ে যাবো, যদি ঘুরে দাঁড়াতে না পারি আমাদের নেতা তারেক রহমান, গণতন্ত্র এবং স্বাধীনতার কাছে অপরাধী হয়ে যাবো। সেজন্য সবাইকে অনুরোধ করি সবাই এক জায়গায় হোন, প্রস্তুতি নিন।

শনিবার (১৩ অক্টোবর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনী মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী ফোরাম আয়োজিত বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সাজা বাতিল এবং যুগ্ম-মহাসচিব হাবিব-উন নবী খান সোহেলের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে এক প্রতিবাদ সভায় প্রধান আলোচকের বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের উদ্দেশ্যে বিএনপির এই শীর্ষনেতা বলেন,‘কোর্ট সর্বোচ্চ বিচারালয় এটা আমরা মনে করি। সর্বোচ্চ বিচারালয় উপরে বসে আছেন আমাদের সৃষ্টিকর্তা। তিনি সব দেখছেন। তার বিচারের রায় যখন হবে, আপনারা (আ.লীগের নেতারা) জানেন না সে রায় কতটা ভয়ঙ্কর নির্মম। আপনাদেরকে হুমকি দিচ্ছি না। হুঁশে আসেন, আপনারা ক্ষমতায় আছেন আমরাও ক্ষমতায় ছিলাম। ক্ষমতা বায়োবীয়, এক সকালে উঠে দেখবেন ক্ষমতা নাই। জনগণ আপনাদের সাথে নাই। সেই জন্য বলছি, একটি ভালো নির্বাচন দেন। নির্বাচনের মধ্য দিয়ে পরিবর্তন হলে আপনাদের জন্য ভালো, দেশের জন্য ভালো। আর নির্বাচনের মধ্য দিয়ে যদি পরিবর্তন না হয়। কেউ জানে না দেশের ভবিষ্যৎ কি? দেশের অবস্থা কী দাঁড়াবে।

সাম্প্রতিক সময়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রী মো. নাসিমের দেয়া বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘নাসিম সাহেব বলছেন, বিএনপি সন্ত্রাসী সংগঠন। বিএনপিকে এখন নিষিদ্ধ করা যায়। নাসিম সাহেব আগামী নির্বাচনে বুঝতে পারবেন কে কাকে নিষিদ্ধ করে’।

ইতিহাসের প্রসঙ্গ টেনে ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি বলেন, ‘শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তান আমলে যখন গণতন্ত্রের কথা বলেছেন তখন তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা হয়েছে এবং তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে। এ কথা বললে আওয়ামী লীগ বিশ্বাস করতে চায় না। শেখ মুজিবের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহী মামলা হয়েছে। সেই মামলা কোর্টে মীমাংসা হয়নি, রাজপথে মীমাংসা হয়েছে। আমাদের নেতা তারেক রহমানের বিরুদ্ধে যা হয়েছে এটাও সমসাময়িক কোন বিষয় না। সারা বিশ্বে এটা নজিরবিহীন। শুধুমাত্র তিনি বিএনপির রাজনীতি গ্রহণ করেছেন বলে তাকে যাবজ্জীবন সাজা দেয়া হয়েছে’।

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক জীবন বর্ণনা করে দুদু বলেন,‘গণতন্ত্রকামী বেগম খালেদা জিয়া, তিনি শুধু বাংলাদেশেরই নয় সারা বিশ্বের অহংকার।সারা বাংলাদেশে এমন কোন বিভাগ নাই যেখানে তিনি নির্বাচন করে জয়ী হননি। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের প্রত্যয় জীবনের শেষ লড়াইটা করার ব্যক্ত করেছেন এটাই তার অপরাধ। ফ্যাঁসিবাদের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছেন এটাই তার অপরাধ। গঠনমূলক বাংলাদেশের আশা করেছেন এটাই তার অপরাধ।এই কারণে তাকে সাজা দেয়া হয়েছে। তার যে অপরাধ এটা একটি হাস্যকর’।

আয়োজক সংগঠনের আহবায়ক আত্তারুজ্জামান বাচ্চুর সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা সুলতানা আহমেদ, জিনাফের সভাপতি লায়ন মিয়া মো. আনোয়ার প্রমুখ বক্তব্য দেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ