প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ওপর নির্ভরশীল বর্তমান সরকার

আবুল খায়ের ভূঁইয়া : বর্তমান সরকার দেশের সাধারণ মানুষের মুক্ত চিন্তাধারাকে ভয় পায় বলেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করেছে। সংবাদপত্রের স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও সর্বস্তরের মানুষের মৌলিক অধিকারকে গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে। তারা মনে করে ডিজিটার নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে তাদের ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করতে পারবে। এবং মানুষের অধিকার ক্ষুণœ করে তাদের ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে পারবে। আর এই সবই হচ্ছে স্বৈরশাসনের বাস্তব চিত্রের একটি অংশ। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাশের পর মনে হচ্ছে, দেশে যে সংবাদপত্রের প্রয়োজন নেই। এই আইনের মাধ্যমে একজন সাব ইন্সপেক্টরের হাতে যে ক্ষমতা দিয়েছে সরকার তা দিয়ে যে কোনো একজন নিরপরাধ মানুষেকে ইচ্ছে করলেই গ্রেপ্তার করতে পারবে।

এই বিষয়টি খুবই ন্যাক্কারজনক বলে আমি মনে করি। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে কয়েকটি ধারায় বিভক্ত করা হয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম ৫৭ নম্বর ধারা। এই ধারা নিয়ে দেশের সুশীল সমাজ থেকে শুরু করে বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিরাও প্রশ্ন তুলেছে।

এবং দেশের সচেতন ও শিক্ষিত জনগণ বিভিন্নভাবে তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অনেকেই জানেন, বর্তমান সময়ে শত্রুতা করে ফেসবুকে যদি কোনো ব্যক্তির নামে ফেক আইডি খুলে সেই আইডিতে উস্কানিমূলক লেখালেখি করে, তাহলে মামলা হয় ঐ ব্যক্তির নামে এবং গ্রেপ্তার করা হয়। কিন্তু এই বিষয় সম্পর্কে গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তি কিছুই যানেন না। কিন্তু মামলা হলো এবং ২ বছরের আগে জেল থেকে বের হতে পারছে না। যখন কোনো স্বৈরশাসক জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে, তখন তারা তাদের ক্ষমতাকে টিকিয়ে রাখার জন্য বিভিন্ন পন্থায় হাঁটতে থাকে। আর বর্তমান সরকার তাদের ক্ষমতা টিকিয়ে রাখবার জন্য  ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের উপর নির্ভর করছে।  পরিচিতি : বিএনপি, সাবেক এমপি/সাক্ষাৎকার গ্রহণ : তাওসিফ মাইমুন/ সম্পাদনা : ফাহিম আহমাদ বিজয়

সর্বাধিক পঠিত