প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আসন্ন নির্বাচনে এমপি প্রার্থী হতে পারে যেসব তারকা১২

বিডি২৪লাইভ : আর কিছু দিন পরেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত বিভিন্ন দল। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সব জায়গাতেই নির্বাচনী আমেজ। পিছিয়ে নেই শোবিজ ভুবনের তারকারাও। নিজ নিজ এলাকা থেকে নিজদের দলের জন্য প্রচারনা করে যাচ্ছে। অনেকেই আবার সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এবার দেখে নেয়া যাক আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোন কোন তারকা অংশ নিতে যাচ্ছেন।

বাংলা চলচ্চিত্রের মিয়া ভাই খ্যাত অভিনেতা ফারুক (আকবর হোসেন পাঠান)। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের একাংশের সভাপতি। তিনি গাজীপুর-৬ (কালীগঞ্জ-গাজীপুর মহানগর-সদর আংশিক) এ আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে জোড় চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। নিজের প্রার্থীতা পাওয়ার জন্য অনেক আগে থেকে নির্বাচনী প্রচার করছেন।

এ বিষয়ে জনপ্রিয় নায়ক ফারুক বলেন,‘আমি নির্বাচন করতে চাচ্ছি। আমাকে যদি নেত্রী উপযুক্ত মনে করে মনোনয়ন দেন তবে আমি নির্বাচন করব। অথ্যাৎ নেত্রী নির্বাচন করার জন্য টিকিটটা দিয়ে দিলে তাহলে তো আর কোনও বাধা থাকল না। দেশের জনগণকে আমার পক্ষ থেকে এখনও অনেক কিছু দেয়ার বাকি আছে। নির্বাচনে জয়ী হয়ে দেশ ও দশের জন্য কাজ করব।’

এক সময়ের তুখোড় ছাত্রলীগ নেতা চিত্রনায়ক সোহেল রানা (মাসুদ পারভেজ)। বর্তমানে তিনি জাতীয় পার্টির সাথে সম্পৃক্ত আছেন। নির্বাচনের ইচ্ছা থাকলেও জনপ্রিয় এই নায়ক দলের প্রধানের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করে নির্বাচনের বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারেননি।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনের প্রার্থী হওয়া নিয়ে চিত্রনায়ক সোহেল রানা বলেন, ‘আমি নির্বাচনে প্রার্থী হব কিনা তা এখনও ভাবিনি। তবে দলের প্রেসিডেন্ট যদি চান নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে হবে তবেই আমি নির্বাচনের প্রার্থী হব। গতকাল রোববার আমাদেও একটা মিটিং হয়েছে যেখানে দল থেকে কে কোথায় নির্বাচন করবেন তা নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। আমি মনে করি আমার যেখানেই নির্বাচনের অংশগ্রহণ করতে বলবে সেখান থেকে করার ইচ্ছা আছে।’

ঢাকাইয়া সিনেমার জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ফেরদৌস আহমেদ। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর সফর সঙ্গী হওয়া ও দলীয় বেশকিছু কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ করছেন। এরপর থেকে তার নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার খবর চলচ্চিত্র অঙ্গণে প্রসারিত হয়। এ বিষয়ে চিত্রনায়ক ফেরদৌস বলেন, ‘নির্বাচনের প্রার্থী হওয়া নিয়ে এখনও কিছুই বলতে পারছি না। তবে নেত্রী যদি মনোনয়ন দেন তবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করব।’

এক সময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক শাকিল খান। অনেক আগে থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সক্রিয় তিনি। তিনি তার এলাকায় নির্বাচনী প্রচার প্রচারাণাও চালাচ্ছেন। তিনি বাগেরহাট-৩ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী।

নির্বাচনের বিষয়ে শাকিল খান বলেন, ‘নেত্রীর সাথে আমার কথা হয়েছে। তিনি আমাকে এলাকায় নির্বাচনী গণসংযোগ চালিয়ে যেতে বলেছেন। আমি কোনও কারণে মনোনয়ন না পেলেও আওয়ামী লীগের পক্ষেই কাজ করে যাব।’

মনির খান, সঙ্গীতশিল্পী নিজের নির্বাচনী এলাকা ঝিনাইদহ-৩ আসন থেকে নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তিনি বিএনপি থেকে নির্বাচনের জন্য নিজ এলাকায় গণসংযোগ চালাচ্ছেন। এ বিষয়ে মনির খান বলেন, ‘আমি বিএনপি থেকে নির্বাচন করব। যদি দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন হয়, তবে আমি নির্বাচনে বিজয়ী হব।’

দেশের জনপ্রিয় গীতিকার, সুরকার ও চলচ্চিত্রকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার। বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত তিনি। এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে চান তিনি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘গান লেখার মাধ্যমে দেশের মানুষের পাশে ছিলাম এবং থাকব। আমি বিএনপি সমর্থিত একজন কর্মী। আমি দেশের মানুষের সাথে কাজ করে যেতে চাই।’

ফোক সম্রাজ্ঞীখ্যাত জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মমতাজ আওয়ামী লীগের ব্যানারে মানিকগঞ্জ-২ আসন থেকে নির্বাচিত এমপি। এর আগেও তিনি সংরক্ষিত মহিলা আসনে এমপি ছিলেন। আসছে নির্বাচনে আবারও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চান তিনি।

সঙ্গীতশিল্পী বেবী নাজনীন। বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত তিনি। বর্তমানে দলটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। নীলফামারীর-৪ আসনের (সৈয়দপুর এবং কিশোরগঞ্জ) থেকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চান।

এ বিষয়ে বেবী নাজনীন বলেন,‘নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে দেশ ও জাতির জন্য কাজ করে যেতে চাই। দল থেকে যদি আমি সুযোগ পাই তবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করব।’

এছাড়াও তারকাদের মধ্যে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগ থেকে কন্ঠশিল্পী রুবেল, খালিদ, চিত্রনায়িকা শাবানা অংশগ্রহণ করার কথা জানা গেছে। এছাড়া বিএনপি থেকে, কন্ঠশিল্পী আসিফ আকবর, কনকচাপা, হেলাল খান ও রিজিয়া পারভীন মনোনয়ন চাইবেন বলেও জানা গেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ