প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জিনবিদ্যায় নতুন সম্ভাবনার দুয়ার
বাবা ছাড়াই জন্ম নিয়েছে ইঁদুর শিশু

আসিফুজ্জামান পৃথিল : জেনেটিক প্রকৌশলবিদ্যায় আরো এক ধাপ এগিয়ে গেলেন চীনা বিজ্ঞানীরা। জিনের কোডে পরিবর্তন এনে পুরুষ ইঁদুরের শুক্রাণু ছাড়াই নিষিক্ত করানো হয়েছে নারী ইঁদুরের ডিম্বানু। অর্থাৎ বাবা ছাড়াই জন্ম নিয়েছে ইঁদুর শিশু!
এই শিশুইঁদুরগুলো শুধু প্রাপ্ত বয়স্ক হয়েছে তাই নয়, তারা নিজেরাও সন্তান জন্ম দিয়েছে। ফলে খুলে গিয়েছে জিনবিদ্যায় নতুন সম্ভাবনার দুয়ার। চীনা অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস এর জীববিজ্ঞানীরা জিনে একটি বিশেষ সম্পাদনা পদ্ধতি ব্যবহার করে এ অসাধ্য সাধন করেছেন। জনন কোষের জীনে একটি ‘লুপ’ তৈরী করে প্রথমে অর্ধেক ক্রেমোজোমকে আলাদা করা হয়েছে। এরপর সেগুলোর কোড বদলে দেয়া হয়েছে। ইতিহাসে শুক্রাণু ছাড়া জন্মানো এগুলোই প্রথম প্রাণী। তবে প্রকৃতিতে এরকম উদাহরণ আগে থেকেই রয়েছে। বেশ কিছু কীটপতঙ্গ নিজেদের মায়ের ‘ক্লোন’ হিসেবে জন্ম নয়। কিছু মাছের ক্ষেত্রেও তাই ঘটে। এমনকি কিছু গিরগিটি ও উভচর প্রানীও বাবা ছাড়া জন্মায়। তবে কোন স্তন্যপায়ীই বাবা ছাড়া জন্মাতে পারে না।
স্তন্যপায়ীদের স্টেমসেলে কিছু খালি স্থান থাকে। বাবা অথবা মা থেকে আসা জিন সে স্থান পুরণ করে। চীনা বিজ্ঞানীরা সে পদ্ধতিই বদলে দিয়েছেন। এ পদ্ধতিকে বলা হচ্ছে ‘জেনেটিক ইমপ্রিন্টিং’। দুটি ডিম্বানু বা দুটি শুক্রানু দিয়ে স্টেমসেলের ফাঁকা স্থান পূরণ করে এখন থেকে সমলিঙ্গের দুটো প্রাণী থেকেই উৎপাদিত হবে সন্তান। চীনা ইঁদুরগুলোর ক্ষেত্রেও ব্যবহৃত হয়েছে দুটি নারী ইঁদুর। সায়েন্স অ্যালার্ট

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ