প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অপরাধ বড়, সাজাও দৃষ্টান্তমূলক

মাসুদ কামাল : অপরাধ বড়। সাজাও দৃষ্টান্তমূলক। কিন্তু অপরাধীদের তালিকার দিকে তাকিয়ে মনটা খারাপ হয়ে গেল। আতঙ্কিত বোধ করলাম। এ কোন সমাজে বাস করছি আমরা? প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে একজনকে লক্ষ্য করে গুলি করা কিংবা যুদ্ধক্ষেত্রে শত্রুকে নিশানা করা এসব এক কথা। কিন্তু প্রকাশ্য জনসভায় হাজার হাজার নিরপরাধ মানুষের মধ্যে গ্রেনেড নিক্ষেপ যে কতবড় নৃশংসতা, তা বলার বাইরে। অথচ সেই কাজই হয়েছে এই দেশে। চৌদ্দ বছর পর সেই অপরাধেরই সাজা ঘোষণা করা হলো।

অপরাধীর তালিকায় কারা রয়েছে? সেই সময়ের দুই মন্ত্রী (একজন আবার ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে), সামরিক গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান, জাতীয় নিরাপত্তা বিভাগের প্রধান, পুলিশের প্রধান, মহানগর পুলিশের প্রধান, অপরাধ তদন্ত বিভাগের প্রধান- এমন সব রথী-মহারথীরা! আর এদের সবার মাথার ওপরে নাকি ছিলেন সেই সময়ের ‘অদৃশ্য সরকার প্রধান,’ নীলনকশাও নাকি তারই অনুমোদন করা।

প্রতিপক্ষকে জব্দ করতে বা ধ্বংস করতে রাজনীতিবিদরা অনেক অপকর্মই করে থাকেন। কিন্তু তারা যে রাষ্ট্রের এত এত শীর্ষ ব্যক্তিদের সমর্থন নিয়ে এসব কাজ করতে পারেন, ভাবতেই গা শিউরে ওঠে। রাষ্ট্র ও সরকার তো এক বিষয় নয়। সরকার রাজনৈতিক, কিন্তু রাষ্ট্র অরাজনৈতিক। তাই রাষ্ট্রের কর্মচারীরাও নীতিগতভাবে থাকবেন সংকীর্ণ রাজনীতির বাইরে। কিন্তু এমন এক সংস্কৃতি তৈরি হয়ে গেছে আমাদের দেশে, যেখানে সব মিলেমিশে একাকার হয়ে গেছে। রাষ্ট্র যেন নতজানু হয়ে পড়েছে সরকারের কাছে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় কেবল যদি রাজনীতিবিদ, আর জঙ্গিরাই দোষী সাব্যস্ত হতো হয়তো তুলনামূলকভাবে স্বস্তি বোধ করতাম। এখন আতঙ্কিত বোধ করছি।

লেখক : সিনিয়র নিউজ এডিটর, বাংলাভিশন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ