Skip to main content

বৈষম্য নিরসনের কোনো চেষ্টা করেনি সরকার : অধ্যাপক আবু আহমেদ

তানজিনা তানিন : দেশের বৈষম্য বৃদ্ধির গতি অনেক বেশি, যা কমানোর কোনো চেষ্টা করেনি সরকার- এমনটিই মত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক ও অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক আবু আহমেদের। এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, বৈষম্য বৃদ্ধির গতি কতটা বেশি তা অক্সফামের প্রকাশিত সূচকে বাংলাদেশের ১৪৮তম অবস্থান দেখে বুঝেছে সবাই। তিনি আরও বলেন, বৈষম্য বৃদ্ধির নানা কারণ এখন আমাদের সামনে দৃশ্যমান। ব্যাংক লুট, শেয়ারবাজার ধস, ঋণ খেলাপি ব্যক্তির সংখ্যা বৃদ্ধি আমাদের অর্থনীতিতে অনেক বড় বৈষম্যের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। একচেটিয়া ব্যবসা করে অবৈধ টাকা বিদেশে পাচার করছে কিছু অসাধু ব্যক্তি, যাদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার কোনো তৎপরতা নেই সরকারের। এক প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক আবু আহমেদ বলেন, দেশের বেশিরভাগ সম্পদ কিছু মানুষের হাতে, যা আমাদের গড় মাথাপিছু আয়ের হার বাড়িয়েছে। কিন্তু মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্ত শ্রেণির হাতে অর্থ আসছে না। যদি লক্ষ্য করি তবে দেখব কর প্রদানে সচেষ্ট রয়েছে মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষ। অথচ যাদের সম্পদের পাহাড় গড়ে উঠেছে, তারা অনেক বেশি কর ফাঁকি দিচ্ছে। তিনি বলেন, প্রথমে রাজনৈতিক তৎপরতা বৃদ্ধি ও উদ্যোগ গ্রহণ প্রয়োজন। প্রশাসনিক কাজে আনতে হবে স্বচ্ছতা। কাজ করতে হবে সুশানের পক্ষে। ন্যায়ভিত্তিক সমাজ গড়ে তোলার মাধ্যমেই বৈষম্যহীন সমাজের চিত্রায়ন সম্ভব বলেও মনে করেন এই অর্থনীতিবিদ।

অন্যান্য সংবাদ