প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আইভি রহমানের শাড়িটি রক্তে লাল হয়েছিল

আমাদেরসময় : ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট। আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশ চলছিল রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে। সে সময় সমানতালে দুদিক সামলাতে ব্যস্ত ছিলেন ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা এমপি। একবার যাচ্ছিলেন তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনার সভামঞ্চের পাশে, পরক্ষণেই ছুটছিলেন বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের পাশের সোনালী ব্যাংকের সামনে।
সেখানে ব্যানার হাতে মিছিলের প্রস্তুতি নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিল মহিলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। বর্তমানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির মহিলাবিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা এমপি তখন মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

ইন্দিরা জানান, আওয়ামী লীগ সভাপতির বক্তব্য তখন শেষের দিকে। আমি আবার একবার যাই ট্রাকের ওপর মঞ্চের কাছে। দেখলাম, আওয়ামী লীগের তৎকালীন মহিলাবিষয়ক সম্পাদক আইভি রহমান নেতাকর্মীদের নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন মঞ্চের সিঁড়ির ওপর। আমি তাদের জানালাম, বক্তব্য শেষ হলেই চলে আসতে। কারণ আমাদের মিছিল শুরু করতে হবে।
এটা বলে মঞ্চ থেকে সোনালী ব্যাংকের কাছে ফিরে আসতেই শুরু হলো বিকট শব্দে গ্রেনেড হামলা। চারদিকে শুধু ধোঁয়া আর গ্রেনেডের শব্দ। অনেকেই প্রাণের ভয়ে রুদ্ধশ্বাসে দৌড়াচ্ছে। বিস্ফোরণ থামতেই আমি কর্মীদের নিয়ে মঞ্চের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করলাম। কিন্তু মানুষের ভিড়ে বেশিদূর এগুতে পারলাম না। পরে আমরা বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ থেকে সরাসরি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে যাই।

মেডিক্যালের জরুরি বিভাগে গিয়ে যে দৃশ্য দেখেন ইন্দিরা, তা বলতে গিয়ে আবেগে কণ্ঠ ধরে আসছিল তার। বলেন, মেডিক্যালের জরুরি বিভাগে ঢুকে মনে হলো এটা একটা রক্তের সাগর। যেদিকে চোখ মেলছিলাম, খালি রক্ত আর রক্ত। মর্গে গিয়ে দেখি সারি সারি লাশ। এর মধ্যে আমার সংগঠনের তিনজন কর্মী সুফিয়া, হাসিনা মমতাজ ও রেজিয়াও ছিল। তারা ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান।
প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের স্ত্রী মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক নেত্রী আইভি রহমানের বিষয়ে তিনি বলেন, আইভি আপা মারাত্মক আহত হন। তাকে ওই সময় চিকিৎসা করা দুরূহ ছিল। আপনারা ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার যে ছবি পোস্টারে, ব্যানারে দেখেন, তাতে দেখা যায় আইভি আপা একটি লাল-সাদা রঙের শাড়ি পরেছিলেন। আসলে উনার শাড়িটি ছিল সাদার ওপর কালো প্রিন্টের।

এর আগের দিন ২০ আগস্ট কাফরুল থানা মহিলা আওয়ামী লীগের একটা সমাবেশে উনি প্রধান অতিথি ছিলেন। ওই সমাবেশে আমি বিশেষ অতিথি ছিলাম। ওইদিনও তিনি ওই শাড়িটিই পরে এসেছিলেন। আসলে গ্রেনেডের আঘাতে উনি এতটাই আহত হয়েছিলেন, শাড়ি রক্তে ভিজে লাল হয়ে যায়। আমরা তখনও ভাবিনি এভাবে আইভি আপার মৃত্যু হবে। এ নারকীয় হত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি জানান ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ