প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘তারেক রহমানের সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড দিতে হবে’

এম, এ কুদ্দুস, বিরল (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের বিরলে বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করলেন, প্রধান অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এম.পি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি বিরল সরকারি পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের নাম ফলক স্থাপন করেন এবং পরে তিনি মুন্সিপাড়া ইউপিজেডআর হতে নোনাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত রাস্তা পাকা করণ কাজের উদ্বোধন ও মুন্সিপাড়া আদর্শ কলেজের নবনির্মিত ৪ তলা একাডেমিক ভবনের শুভ উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনের পর বিকালে মুন্সিপাড়া আদর্শ কলেজ মাঠে এক জনসভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনা ভোটের রাজনীতি করেনা। এদেশের মানুষের উন্নয়নে কাজ করে। শেখ হাসিনা আর একবার এদেশের দায়িত্ব পেলে দেশের প্রতিটি গ্রাম শহরে পরিনত হবে।

বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার হাতে যতদিন দেশ থাকবে ততদিন বাংলাদেশ পথ হারাবেনা উল্লেখ করে
তিনি বলেন, শেখ হাসিনার আমলে দেশের ব্যপক উন্নয়নসহ দেশে আইনের শাষণ প্রতিষ্ঠা হয়েছে। তাই বঙ্গবন্ধুর খুঁনিদের বিচারসহ ৭১-এর যুদ্ধাপরাধী, রাজাকার আল বদরদের বিচার হয়েছে।

তিনি বলেন, ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার রায় হয়েছে। কিন্তু এ রায় দেশের মানুষ সন্তুষ্ট চিত্তে মেনে নিতে পারেনি। তারেক রহমান ছিল এ গ্রেনেড হামলার মূল পরিকল্পনাকারী। তাকে সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদন্ড দিতে হবে এবং সেসময় সরকারের প্রধানমন্ত্রী যে সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে হত্যা করার জন্য গ্রেনেড হামলা চালানো হয়েছিল সেই খালেদা জিয়াকে বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে প্রয়োজনে আমরা আপিল করবো।

তিনি আরো বলেন, ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার রায়ে বিএনপি’র মাথায় বাজ পড়েছে। তারা রায় প্রত্যাখ্যান করে ৭ দিনব্যাপী প্রতিবাদের কর্মসূচি দিয়েছে। কিন্তু তাঁদের ডাকে এদেশের মানুষ আর সাড়া দিবেনা। বিএনপি একটি ব্যার্থ রাজনৈতিক দল। তাঁরা শুধু খুন, হত্যা, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ সৃষ্টিসহ দেশের সম্পদ লুন্ঠন করতে পারে। তাঁদের কাছে এদেশের জান ও মালের কোন প্রকার নিরাপত্তা কখনো ছিলনা। তারা এদেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বাধাগ্রস্ত করার জন্য আবারো ষড়যন্ত্র করছে। তাই সবাইকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক আল-আমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম রওশন কবীর, বিরল উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব এম, আব্দুল লতিফ, সাধারণ সম্পাদক একেএম মোস্তাফিজুর রহমান বাবু, সহ-সভাপতি ও পৌর মেয়র আলহাজ্ব সবুজার সিদ্দিক সাগর, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল কাশেম অরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রমাকান্ত রায় এবং যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মোশারফ হোসেন। এছাড়া প্রমূখও বক্তব্য রাখেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ