প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভাসান চরে ২৫ হাজার রোহিঙ্গা পরিবারকে নেওয়ার প্রস্তুতি: ত্রাণমন্ত্রী

তরিকুল ইসলাম সুমন: নোয়াখালীর ভাসান চরে ২৫ হাজার রোহিঙ্গা পরিবারকে নেওয়ার প্রস্তুতি শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে তথ্য অধিদপ্তরে ঘুর্ণিঝড় তিতলির প্রস্তুতি বিষয়ক এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।

ত্রাণমন্ত্রী বলেন, ভাষানচরে কবে নেওয়া হবে তা এখনও ঠিক হয়নি। সব ঠিক, প্রধানমন্ত্রী যেদিন বলবেন, সেদিনই নেওয়া হবে। আমরা প্রস্তুত। এ জন্য তিনি নৌবাহিনীকে ধন্যবাদ জানান। সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, গেলে বুঝতে পারবেন না। সবমিলে সেখানে এক লাখ রোহিঙ্গাকে অস্থায়ীভাবে নেওয়ার কাজ চলছে।

নির্যাতনের মুখে এক বছর আগে আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত ১০ লাখের বেশি মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিক সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। আন্তর্জাতিক সহযোগিতায় কক্সবাজারের টেকনাফ এবং উখিয়ায় তাদের অস্থায়ীভাবে আশ্রয় এবং খাবার ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ সরকার।

মন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গারা যখন আসলো তখন তাদের চেহারা ছিল হাড্ডিসার। কাপড় নাই, বস্ত্র নাই। এদের দেখলে ভয় লাগতো। এখন তাদের অবস্থা আগের তুলনায় অনেক ভাল।
সাংবাদিকদের আমন্ত্রণ জানিয়ে মায়া বলেন, শেখ হাসিনা কী কাজ করেছেন সেখানে, চলেন একদিন যাই। বাস ভরে দেখে আসি।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ২৮ নভেম্বর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি  ‘আশ্রয়ন-৩ (নোয়াখালী জেলার হাতিয়া থানাধীন চর ঈশ্বর ইউনিয়নস্থ ভাসানচরে ১ লক্ষ বলপূর্বক বাস্তচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিকদের আবাসন এবং দ্বীপের নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ)’ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীনে ২ হাজার ৩১২ কেটি টাকার এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ