প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমার পেশাগত দায়িত্ব পালনে আমাকে সাবধান থাকতে হবে

মেজর অব. আখতারুজ্জামান : সরকার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাস করেছে। এই আইন মত প্রকাশে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। আবার বাধা-নিষেধের সাপেক্ষেই মত প্রকাশের কথা বলা আছে সংবিধানে। আমি সরকারে গেলে কি করতাম? আমি সরকারে গেলে কি অনুমতি দিতাম যে, আপনারা যা খুশি করবেন। সরকার সেটাই করেছে এবং আইনগতভাবেই করেছে। যাই হয়েছে সংসদে আইন পাস করে হয়েছে। তাছাড়া সাংবাদিকরাই তো বিভক্ত। আপনাদের বড় বড় সাংবাদিকরাই এই আইন বিষয়ে নীরব ভূমিকা পালন করছেন। এই আইন সাধারণ মানুষের কোনো আইন নয়। এটা তাদের জন্য যারা মত প্রকাশ করে নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন করতে চায়। একজনের ক্ষতি করে আরেকজনের পক্ষে কথা বলার অধিকার থাকতে পারে না। আপনার কথায় যদি আরেকজন ক্ষতিগ্রস্থ না হয়, তা হলে আপনি যা খুশি বলেন সে ক্ষেত্রে কোনো বাধা-নিষেধ নেই। আপনার কথায় আরেকজন ক্ষতিগ্রস্থ হবে, সেখানে আইন  অবশ্যই দরকার। মত প্রকাশের অধিকার আমার আছে, কিন্তু মত প্রকাশ করে যদি আমি অন্যর ক্ষতি করি সেটার অধিকার আমাকে দেয়া হয়নি। দেখা যায়, অনেক সময় আমি মত প্রকাশ করি তা এমনভাবে প্রকাশিত হয় যার দ্বারা অন্যের সুবিধা হয়। আমার পেশাগত দায়িত্ব পালনে আমাকে সাবধান থাকতে হবে।

মুক্ত মতপ্রকাশ তো জনগণ করছে না। আমার কথা আপনারা পত্রিকায় ছাপাচ্ছেন। এখানে আমার একটি উদ্দেশ্য আছে অবশ্যই। আমার উদ্দেশ্যের জন্য আমি অন্যজনকে ক্ষতি করবো। এই জিনিষটি তো খেয়াল রাখতে হবে। সরকারের দায়িত্ব এটা যে, সবার দিকে খেয়াল রাখা। আইন যেহেতু হয়ে গেছে। আইনে তো একপক্ষ বিরোধী থাকবেই। আইন পাস হওয়ার পরে যদি আমরা আইন নিয়ে প্রশ্ন তুলি তাহলে তো আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকবো না। তাহলে সংসদের প্রয়োজন কি? কাজেই সাংবাদিকদের যা কিছু বলার তা বলা উচিত আইনের মাধ্যমে সংসদে গিয়ে অথবা সংসদের প্রতিনিধিদের মাধ্যমে বলা। এখন চেষ্টা করা হচ্ছে তা ব্ল্যাকমেল বা চাপ সৃষ্টি করা। এই চাপটা আইন ও সংবিধান পরিপন্থী। সবার সম্মতিতে আইন করা সম্ভব নয়। পরিচিতি : সাবেক সংসদ সদস্য, বিএনপি ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক/ মতামত গ্রহণ : মো.এনামুল হক এনা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত