প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

নির্বাচন প্রক্রিয়া ত্রুটিমুক্ত না হলে দেশ দুর্নীতিমুক্ত হবে না : গোলাম রহমান

ফয়সাল মেহেদী : রাজনৈতিক দলগুলো যখন বিরোধী দলে থাকে তখন তারা দুর্নীতি বিরোধী কথা বলে। নির্বাচনী ম্যানিফেস্টোতেও দুর্নীতি বিরোধী কথা বলে। কিন্তু ক্ষমতায় যাওয়ার পর সেই কথা মনে থাকে না। তারা যে নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় যায় সেই নির্বাচনের মধ্যেই ঘুন থাকে। নির্বাচন প্রক্রিয়াকেই যদি ত্রুটিমুক্ত না করা যায় তাহলে দেশ দুর্নীতিমুক্ত হবে না।

শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে ‘ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’ আয়োজিত ‘রাজনৈতিক সদিচ্ছাই পারে দুর্নীতি দূর করতে’ শীর্ষক বিতর্ক প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম রহমান। ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণের পরিচালনায় বিতর্কে অংশ নেন ইস্ট ওয়েষ্ট ইউনিভার্সিটি ও বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা।

গোলাম রহমান বলেন, দুর্নীতি নতুন কিছু নয়। খুবই আলোচিত একটা বিষয় দুর্নীতি। আড়াই হাজার বছর আগে চাণক্য তার অর্থশাস্ত্রে লিখেছেন কিভাবে রাজকর্মচারীরা দুর্নীতি করেন। এখন রাজতন্ত্র নাই তবে আমলাতন্ত্র, রাজনীতি, সরকারি কর্মচারীরা আছেন। তারাই দুর্নীতি করছেন। বেসরকারি হিসেবে একজন সংসদ সদস্যের নির্বাচিত হতে কয়েক কোটি টাকা লাগে। যদি অর্থশক্তি, পেশি শক্তি ও রাজনৈতিক শক্তি সংশোধন না হয় তবে দেশ দুর্নীতিমুক্ত হবে না। এর জন্য প্রয়োজন রাজনৈতিক সদিচ্ছা। দরকার বাল্যশিক্ষা, পারিবারিক শিক্ষা ও সামাজিক সচেতনতা তৈরি।

দুদকের সাবেক এই চেয়ারম্যান বলেন, ১৯৮৯ সালে দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করতে ন্যায়পাল নিয়োগের জন্য একটি আইন করা হয়েছিলো। দলগুলো নির্বাচনী ম্যানিফেস্টোতেও তা দেয় কিন্তু আজও তা হয়নি। কেবল শাস্তি দিয়ে দুর্নীতি বন্ধ করা যাবে না। কারণ, সমাজ ব্যবস্থাই এমন যে মানুষের মূল্যায়নই হয় টাকায়। তাই পদ্ধতি ও চেতনার পরিবর্তন সবার আগে জরুরি।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ সম্পর্কিত একজন উপদেষ্টা নিয়োগের পরামর্শ দিয়ে গোলাম রহমান বলেন, এই উপদেষ্টা দুর্নীতি বন্ধ নয়, কমিয়ে আনতে কাজ করবেন। একবারে বন্ধ না হলেও দেশের উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে দুর্নীতি কমে আসবে। বর্তমানে এ কারণে দেশ দেড় শতাংশ জিডিপি হারাচ্ছে। দেশকে উন্নত করতে হলে দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে।

ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, দুর্নীতি প্রতিরোধ কারাটাই এখন সরকারের অন্যতম এজেন্ডা হওয়া উচিত। রাজনীতিবিদরা চাইলে দুর্নীতি প্রতিরোধ করা শুধু সময়ের ব্যাপার।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত