প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কুমিল্লায় সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুলছাত্রী নিহতের ঘটনায় মহাসড়ক অবরোধ

মাহফুজ নান্টু : ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার গালর্স স্কুলের সামনে মহাসড়ক পারাপারের সময় উম্মে মারজানা ঝুমা(১৩) নামে সপ্তম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়। নিহত শিক্ষার্থী উপজেলার নোয়াপাড়া এলাকার সোহাগ হোসেনের মেয়ে। সে চৌদ্দগ্রাম গালর্স স্কুলের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ছিলো।

স্থানীয়রা জানায়, শনিবার বেলা সাড়ে ৪ টায় স্কুল ছুটির পর মহাসড়কের রাস্তা পাড়াপাড়ের সময় একটি কাভার্ডভ্যান ওই ছাত্রীকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়। পরে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন এসে মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজিত জনতা মহাসড়ক অবরোধ করে। এ সময় বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর করার ঘটনা ঘটে।
খবর পেয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার পুৃলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মাহফুজ জানান, সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুল শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় উত্তেজিত জনতা মহাসড়ক অবরোধ করে। পরে দোষিদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে জানালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। তিনি জানান, কার্ভাড ভ্যান চালককে আটক করা হয়েছে।

এদিকে চৌদ্দগ্রাম গালর্স স্কুলের প্রধান শিক্ষক জামাল হোসেন জানান, কান্নারত অবস্থায় প্রধান শিক্ষক জামাল হোসেন জানান, বড় শান্ত আর মেধাবী শিক্ষার্থী ছিলো ঝুমা।

নিহত স্কুল শিক্ষার্থী ঝুমার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, স্বজনদের আর্তনাদে ভারী হয়ে উঠেছে নোয়াপাড়া এলাকা। পুরো এলাকাজুড়ে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। ঝুমার বাবা সোহাগ চৌদ্দগ্রাম বাজারে কাঁচা তরকারী ব্যবসা করেন। মেয়ের লাশের পাশে বুক চাপড়ে বিলাপ করছেন। কোন সান্তনাই যেন থামাতে পারছে না মেয়ে হারা বাবা সোহাগকে।

স্থানীয়রা জানান, চৌদ্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়-গালর্স স্কুল ও চৌদ্দগ্রাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মত জনবহুল প্রতিষ্ঠানের সামনে ফুটওভার ব্রীজ না থাকায় প্রায়ই এখানে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা অভিযোগ করে জানান, শুধুমাত্র একটি ফুট ওভারব্রীজের অভাবে গত এক বছরে কুড়িটির বেশি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত