প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

শেখ হাসিনার নামে পদ্মাসেতুর নামকরণ হচ্ছে : কাদের

মহসীন কবির : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে পদ্মাসেতুর নামকরণ হচ্ছে।  শনিবার ২৯ সেপ্টেম্বর সকালে রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। এসময় তিনি আরও বলেন, পদ্মা সেতুর সার্বিক কাজের ৫৯ শতাংশ অগ্রগতি হয়েছে। আর মূল সেতুর ৭০ শতাংশ কাজের অগ্রগতি হয়েছে। আগামী ১৩ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর ৬০ শতাংশ কাজের অগ্রগতির ঘোষণা দেবেন এবং সেতুতে রেলওয়ে সংযোগ কাজের উদ্বোধন ঘোষণা করবেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘে যাওয়ার পরে বিশ্বের ক্ষমতাবান প্রধানমন্ত্রীরা তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে উন্নয়ন আর্জনের প্রশংসা করেছেন। বিশ্বের উন্নয়নের রোল মডেলর হলেন প্রধানমন্ত্রী। আর বিএনপি জাতিসংঘের আমন্ত্রণ না পেয়ে জাতির কাছে তারা বলেছে তাদেরকে আমন্ত্রণ করা হয়েছে কিন্তু জাতিসংঘকে নিয়ে তাদের মিথ্যাচার সেটাও জাতির কাছে প্রমাণিত হয়েছে। তারা জাতিসংঘের তৃতীয় শ্রেণীর এক কর্মকতার সাথে অনুরোধ করে কথা বলেছিল।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘রাস্তা অবরোধ করে কোনো সভা সমাবেশ করতে দেওয়া হবে না। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সবার জন্য উন্মুক্ত। সেখানে প্রয়োজনে মুক্তমঞ্চ করে দেওয়ার কথাও বলেছেন, যার যা খুশি বলতে পারবেন। দরকার হলে আমরা মাইকও ফিট করে দিব। কিন্তু রাস্তায় চেঁচামেচি করতে দিব না, আমরাও করব না, আপনাদেরও দিব না।’

পত্রিকার মালিক, সম্পাদকদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‌আমার অনুরোধ যা দেখবেন, যা শুনবেন তাই লিখবেন। কেন বলছি, গতকাল ১৪ দলের সমন্বয়ক আমাকে বলেছেন তারা কর্মী সমাবেশ করছেন। কিন্তু আপনারা একে সমাবেশ বলছেন কেন? সমাবেশ বানিয়ে বিএনপির সঙ্গে পাল্টাপাল্টিতো আমরা করব না। পাল্টাপাল্টি করলে কি আমরা নাট্যমঞ্চে করব? এটা সমাবেশ নয়, এটা হচ্ছে কর্মী সমাবেশ। এসব বিষয় বিভ্রান্তির সৃষ্টি করে।

তিনি আরও বলেন, ‘টকশোর বিষয় হলো সভা সমাবেশের অনুমতি লাগবে কেন? উপস্থাপকও বলছে অনুমতি। কিন্তু এ সাবজেক্টটাই বা কেন? পুলিশের অনুমতি শুধু বিরোধী দল নয়, সরকারি দলকেও নিতে হয়। আমরা ক্ষমতাসীন দলও অনুমতি নেই। এটাই নিয়ম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত