প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

ধর্মীয় আচরণে হস্তক্ষেপ আদালতের বিষয় নয়: ভারতীয় বিচারপতি

ওমর শাহ: ভারতের সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা বলেছেন, কোনও ধর্মীয় আচরণ বিভেদমূলক মনে হলেও তাতে হস্তক্ষেপ করতে পারে না আদালত। আদালতকেই ঠিক করতে হবে কীভাবে মহিলাদের অধিকারের সঙ্গে নাগরিকের ধর্মীয় আচরণের অধিকারেরও ভারসাম্য বজায় রাখা যায়। ধর্মীয় আচরণে হস্তক্ষেপ আদালতের বিষয় নয়।

ভারতের কেরালা রাজ্যের সবরীমালা মন্দিরে সব বয়সের নারীদের প্রবেশাধিকার নিয়ে মামলার রায়ে মতামত দিতে গিয়ে তিনি এ অভিমত প্রকাশ করেন। শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টের ৫ সদস্যের বেে র দেওয়া এ রায়টিতে একমাত্র বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রাই এর বিরোধিতা করেন।

সবরীমালা মামলায় ৫ সদস্যের বেে ছিলেন প্রধানবিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি এ এন খানওয়ালিকর, বিচারপতি আর এফ নরিম্যান, বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়া ও বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা। রায় দিতে গিয়ে বেে র চার বিচারপতি সবরীমালায় সব বছরের মহিলাদের প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার ব্যাপারে একমত হন। একমাত্র বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রা এনিয়ে দ্বিমত পোষণ করেন। ফলে গুরুত্বপূর্ণ ওই রায়ের ক্ষেত্রে বেে র চার বিচারপতির মতামতের পাশাপাশি প ম বিচারপতির অভিমতও লিপিবদ্ধ হয়।

বিচারপতি মালহোত্রা বলেন, সতী প্রথার মতো কোনও কোনও ক্ষেত্রে আদালত হস্তক্ষেপ করতে পারে। আয়াপ্পার আরাধনার অধিকারের সঙ্গে সমানাধিকারের অধিকারের সংঘাত তৈরি হয়েছে। শুধু সবরীমালা মন্দিরের ক্ষেত্রেই নয়, অন্যান্য ধর্মীয় স্থানের ক্ষেত্রেও ওই মামলার রায় গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলবে।

উল্লেখ্য, বহু বছর পর শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টের রায়ে এখন থেকে সবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন সব বয়সের মহিলারা। এতদিন ১০-৫০ বছর বয়সী মেয়েরা আয়াপ্পার মন্দিরে প্রবেশ করতে পারতেন না।

শুক্রবার মামলার রায় দিতে গিয়ে আদালতের পক্ষ থেকে বলা হয় নৈতিকতার দোহাই দিয়ে মহিলাদের অধিকার হরণ করা যাবে না। আয়াপ্পায় ভক্তরা সবই হিন্দু। ফলে ভক্তদের অধিকারের মধ্যে ভাগাভাগি হতে পারে না। সবরীমালা মন্দিরে ভক্তদের ঢোকার ক্ষেত্রে যে বাধা নিষেধ আরোপ করা হয়েছে তা কোনও ধর্মীয় আচার হতে পারে না। ১০-৫০ বছরের মেয়েদের মন্দিরে প্রবেশের অধিকার কেড়ে নেওয়া সংবিধানের পরিপন্থী। সূত্র: ডেইলি সিয়াসাত

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত