প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফিলিপাইনে মাদকবিরোধী অভিযানে এক মাসেই নিহত ৪৪৪

মাহাদী আহমেদ : ফিলিপাইনে মাদক বিরোধী যুদ্ধে কেবল আগস্ট মাসেই ৪৪৪ জন সন্দেহভাজন নিহত হয়েছেন বলে তথ্য দিয়েছে দেশটির মাদক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা।

ফিলিপিন্স ড্রাগ এনফোর্সমেন্ট এজেন্সি পিডিইএ জানিয়েছে, ২০১৬ সালে শুরু হওয়া এই অভিযানে এখন পর্যন্ত মোট ৪ হাজার ৮৫৪ জন নিহত হয়েছেন।

সরকার অবশ্য দাবি করে আসছে, যারা পুলিশকে বাধা দিয়েছে, কেবল তাদের ওপরই গুলি চালানো হচ্ছে৷

মাদকের বিরুদ্ধে এই যুদ্ধে গত দুই বছরে গ্রেপ্তার করা হয়েছে দেড় লাখের বেশি মানুষকে৷ এই সময়ে অন্তত ১২টি মাদক তৈরির কারখানা ধ্বংস করা হয়েছে, ২২৩টি মাদকের আস্তানা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির আইনশৃংখলা বাহিনী৷

তাদের দেওয়া হিসাব অনুযায়ী, অভিযানে জব্দ হওয়া মাদকের বাজারমূল্য প্রায় ২৪ বিলিয়ন ফিলিপিনো পেসো বা প্রায় সাড়ে চারশ মিলিয়ন ডলার৷

মানবাধিকার কর্মীরা শুরু থেকেই অভিযানে মৃত্যুর এসব ঘটনাকে ‘বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড’ বলে আসছে। তাদের অভিযোগ, সরকারি হিসেবে মৃত্যুর সংখ্যা অনেক কমিয়ে দেখানো হচ্ছে; আসল সংখ্যা ১২ হাজারের বেশি।

মানবাধিকার কর্মীরা যাই বলুন না কেন, জরিপে প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতের্তের মাদকবিরোধী যুদ্ধে জনগণের সমর্থন বাড়ছে বলে তথ্য দিয়েছে ‘সোশাল ওয়েদার স্টেশন’ নামের একটি সংগঠন৷

জুন মাসে তাদের করা জরিপে দেখা গেছে, মাদক নির্মূলে দুতের্তে ‘সঠিক পথেই এগোচ্ছেন’ বলে মনে করছেন ৭৮ শতাংশ উত্তরদাতা। কেবল ১৩ শতাংশ উত্তরদাতা এই অভিযান নিয়ে আপত্তি জানিয়েছেন।

এর আগে মার্চ মাসে করা আরেক জরিপে ৭৫ শতাংশ ‍উত্তরদাতা দুতের্তের নীতিতে সন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন৷

এবারের জরিপে ২৬ শতাংশ উত্তরদাতা বলেছেন, পুলিশের বিরুদ্ধে ‘লড়াই’ করায় সন্দেহভাজনরা নিহত হয়েছেন বলে তারা বিশ্বাস করেন না৷ অন্যদিকে ২৭ শতাংশ উত্তরদাতা পুলিশের ভাষ্যে আস্থা রাখার কথা বলেছেন।

৯৬ শতাংশ উত্তরদাতা মনে করেন, পুলিশের উচিত যেভাবেই হোক সন্দেহভাজন মাদক ব্যবসায়ীদের জীবিত গ্রেপ্তার করা৷ আবার চার শতাংশ উত্তরদাতা পুলিশ কী করল- তার ধার ধারেন না৷ তাদের মতে, যেভাবেই হোক, মাদক নির্মূলই হওয়া উচিত মূল লক্ষ্য৷- ডয়েচে ভেলে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ