প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

শেরপুরে স্কুলছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড

তপু সরকার, শেরপুর : শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার বাকাকুড়া গ্রামের ৫ম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে তিন যুবককে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার শেরপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন। একইসঙ্গে প্রত্যেক আসামিকে এক লাখ টাকা করে জরিমানার আদেশ দেওয়া হয়।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- বাকাকুড়া গ্রামের ফজল হকের ছেলে আমান উল্যাহ্ (২৩), মৃত মজিবর রহমানের ছেলে কালু (৩০) (পলাতক), হাবিবুর রহমানের ছেলে নূরে আলম (২৮)। এছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার অপর ৩ আসামি হারুন-অর-রশিদ (৩৬), সুন্দরী বেগম (৩৬), আনোয়ার হোসেন আনুকে (১৮) বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা যায়, ঝিনাইগাতী উপজেলার বাকাকুড়া গ্রামের শফিকুল সেকের মেয়ে ও স্থানীয় ব্র্যাক স্কুলের ৫ম শ্রেণির ছাত্রী বিনা আক্তারের সঙ্গে একই গ্রামের প্রতিবেশি ফজল হকের ছেলে আমান উল্যাহর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরে আমান উল্যাহ বিনাকে বিয়ে করতে চাইলে তার বাবা মা রাজি হননি।

পরে ২০১৬ সালের ১৯ জুলাই রাত ৮টার দিকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আসামি কালু বিনাকে তার নানির বাড়ি থেকে কৌশলে ডেকে আনে। পরে মামলার ১নং আসামি আমান উল্যাহ, নূরে আলম, কালু বিনা আক্তারকে দলবদ্ধ ধর্ষণ করে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর মুখমণ্ডল এসিড দিয়ে জ্বলসে দেয়। এরপর বিনার লাশ বাকাকুড়া এতিমখানার পশ্চিম পার্শ্বে শিলঝুড়া খালে ফেলে দেয়।

পরে ওই বছরের ২১ জুলাই স্থানীয় এক ইউপি সদস্য বিনার লাশ ওই খালে ভাসতে দেখে বিনার পরিবারবে খবর দেয়। এঘটনায় বিনা আক্তারের মা সবুজা খাতুন ৬ জনকে আসামি করে ঝিনাইগাতী থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। সম্পাদনা : সারোয়ার/ মুরাদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত