প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হাতের মুঠোয় আসছে ভোক্তা অধিকার

ফয়সাল মেহেদী : ভোগ্যপণ্যে প্রতিনিয়তই প্রতারিত হচ্ছেন ভোক্তারা। ভেজাল পণ্য তৈরি, পঁচা-বাসি বা মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বিক্রি, ওজন ও পরিমাপে কারচুপি, নির্ধারিত মূল্যের অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রিসহ নানা উপায়ে ঠকানো হচ্ছে ভোক্তাদের।এ অবস্থায় প্রতারণা থেকে ভোক্তাদের দ্রুত প্রতিকার দিতে এবার সাড়ে ২৪ লাখ টাকা ব্যয়ে অ্যাপস চালুর উদ্যোগ নিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে অ্যাপস তৈরির প্রাথমিক কাজ।

জানা গেছে, অ্যাপসটি চালু হলে একদিকে যেমন ভোক্তাদের সঙ্গে প্রতারণা কমবে অন্যদিকে সরকারের আয়ও বাড়বে। প্রতারিত হলে তাৎক্ষনিকভাবে অভিযোগ করা যাবে। এর ফলে প্রতিকারও পাওয়া যাবে দ্রুত। অ্যাপসটিতে ভোক্তা অধিদপ্তরের কার্যক্রম, সচেতনতা মূলক তথ্য, ভোক্তা অধিকার আইনের বিভিন্ন ধারা ও তার বিবরন সংযুক্ত করা হবে।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম লস্কর এই প্রতিবেদককে বলেন, ভোক্তারা যাতে অপরাধ সংগঠিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দেশের যে কোনো প্রান্তে বসে অধিদপ্তরে অভিযোগ দাখিল করতে পারেন সে লক্ষ্যেই অ্যাপস চালুর কার্যক্রম চলছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে তিন কিস্তিতে এই ২৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হবে। ইতোধ্যে প্রথম কিস্তির টাকা পাওয়া গেছে। আশা করি খুব শিগগিরই অ্যাপসটি চালু করতে পারবো।

জানা গেছে, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১৩ হাজার ৬০২টি প্রতিষ্ঠান থেকে মোট ১৩ কোটি ৯৯ লাখ ৮৫ হাজার ৭০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এর আগে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ১০ হাজার ৭২৯টি প্রতিষ্ঠান থেকে মোট ৬ কোটি ৮৭ লাখ ৯ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছিল। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে জরিমানা আদায় বাড়ে ২.০৪গুণ বা ৭ কোটি ১২ লাখ ৭৬ হাজার ৪০০ টাকা। শতকরা হিসাবে যা ১০৩.৭৪ শতাংশ।

আদায় করা ওই জরিমানার মধ্যে ১৩ কোটি ৬০ লাখ ৫৮ হাজার ৯৫০ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা করা হয়। যা আগের অর্থবছরের তুলনায় ১০২.৬০ শতাংশ বা ৬ কোটি ৮৯ রাখ ১ হাজার ৩২৭ টাকা বেশি। আর ২৫ শতাংশ হিসাবে বাকী ৩৯ লাখ ২৬ হাজার ৭৫০ টাকা পেয়েছেন ১ হাজার ৯৫২ জন অভিযোগকারী ভোক্তা। এর আগের বছর ১ হাজার ৪১৬ জন ভোক্তা ১৫ লাখ ৫১ হাজার ৬৭৭ টাকা পেয়েছিলেন। সেই হিসাবে অভিযোগের ভিত্তিতে ভোক্তাদের প্রাপ্ত অর্থের পরিমাণ বাড়ে আড়াই গুণেরও বেশি।

অধিদপ্তর সূত্র জানায়, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে সংস্থাটিতে মোট ৯ হাজার ১৯টি লিখিত অভিযোগ জমা পড়ে। এর আগের অর্থবছরে ভোক্তা অধিকারে অভিযোগ আসে ৬ হাজার ১৪০টি। অর্থাৎ আগের অর্থবছরের তুলনায় সর্বশেষ সমাপ্ত অর্থবছরে ভোক্তাদের অভিযোগ বেড়ে দাঁড়ায় ১.৪৭ গুণ বা ২ হাজার ৮৭৯টি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ