প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জিসাসের দুই দিনের কর্মসূচী

নিজস্ব প্রতিবেদক : ১৯৯২ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান এর জাতীয়তাবাদী আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে তরুণ, নির্ভিক, নির্মোহ, নিবেদিতপ্রাণ সংগঠক আবুল হাশেম রানা জিয়া সাংস্কৃতিক সংগঠন (জিসাস)প্রতিষ্ঠা করেন।

জিয়া সাংস্কৃতিক সংগঠন (জিসাস) এর গৌরবময় ২৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী যথাযথ মর্যাদার সাথে পালনে ২ দিন ব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা-চেয়ারম্যান জনাব আবুল হাশেম রানা।

কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, জিসাস এর মুখপত্র ‘সাপ্তাহিক ধানের ছড়া’ পত্রিকা প্রকাশ, আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, জিয়া স্বর্ণপদক ও জিসাস পদক ২০১৮ প্রদান।

২৭ সেপ্টেম্বর: সকাল ১০ টায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান এর মাজার জিয়ারত, পুষ্পস্তবক অর্পন ও র‌্যালী। প্রধান অতিথি: জিসাস উপদেষ্টা ড. আব্দুল মঈন খান।

৩০ সেপ্টেম্বর: দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং গণতন্ত্র উত্তরণ আন্দোলনে নির্যাতন শিকার ও বিশেষ অবদানের জন্য বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের মধ্যে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান সম্মাননা ‘বীর রাজনৈতিক যোদ্ধা স্বর্ণ পদক ২০১৮’ প্রদান, আলোচনা সভা, ধানের ছড়া প্রকাশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। প্রধান অতিথি: বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আবুল হাশেম রানা বলেন, একাত্তর সালে দেশের সাত কোটি জনতা যেমন জীবন মরণ যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে স্বাধীনতার লাল সূর্য ছিনিয়ে এনেছিলেন, ঠিক তেমনি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলা থেকে মুক্ত করতে এবং আপন আলোয় উজ্জীবিত করে ভুলণ্ঠিত-অস্তমিত গণতন্ত্রকে উদ্ধার করতে দেশের প্রতিটি অঞ্চলে যারা জীবনকে বাজি রেখে কাজ করে যাচ্ছেন তাদেরকে জিসাস বীর রাজনৈতিক যোদ্ধা হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।তাদের উপর মামলা, নির্যাতনের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করে তাদেরকে সম্মান জানিয়ে বিএনপি প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান সম্মাননা ‘জিসাস বীর রাজনৈতিক যোদ্ধা’ সম্মাননা প্রদানের ব্যবস্থা করেছি। চূড়ান্ত বিজয় অর্জনের পর পর্যায়ক্রমে আমরা প্রতিটি বিভাগীয় শহর, জেলা শহর, থানা ও ইউনিয়ন তথা প্রত্যন্ত অঞ্চলেও ত্যাগী-নির্ভিক-গতিশীল-কর্তব্য পরায়ন ও দায়িত্বশীল মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের এ ধরনের সম্মাননা জানাব।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত