প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নানা পাটেকার এক দশক আগে যৌন হেনস্থা করেছিলেন তনুশ্রী দত্তকে

ইমরুল শাহেদ : যৌন হেনস্থার ঘটনায় বুধবার মার্কিন অভিনেতা বিল কসবির কারাদ- হয়েছে। এ বিষয়ে বিশ্বব্যাপী মি টু আন্দোলনের মাধ্যমে গোপনীয়তা প্রকাশের যে হিড়িক পড়েছে তার আঘাতে হার্ভে ওয়েনস্টেইনের মতো প্রভাবশালী হলিউডি প্রযোজকও কুপোকাত হয়ে গেছেন। তার বিরুদ্ধে বর্তমানে বিচার চলছে। যে কোনো সময় তার কারাদ-ের আদেশও হতে পারে।

সেই মি টু আন্দোলনের ঢেউ হলিউড থেকে বলিউডে আছড়ে পড়েছে। অভিনেত্রী তনুশ্রী ২০০৮ সালের দিকে অভিযোগ করেছিলেন, তার একজন সহ-অভিনেতা তার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করার এক দশক পর তিনি সেই অভিনেতার নাম প্রকাশ করলেন। তিনি হলেন নানা পাটেকার।

তনুশ্রী জুম টিভির সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘আমি এখানে অভিনেতা নানা পাটেকার, প্রযোজক শামি সিদ্দিকি, পরিচালক রাকেশ সারাং এবং কোরিওগ্রাফার গণেশ আচার্যের নাম উল্লেখ করতে চাই। যখন নানা পাটেকার আমার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন তখন তিনি চিৎকার করেই বলেছেন, গানের মধ্যে তিনি আমার সঙ্গে অন্তরঙ্গ হয়ে উঠবেন। সেটা আমার চুক্তিপত্রে ছিল না। কথা ছিল দৃশ্যটি আমার একার হবে। আমার কাছে খুবই খারাপ লাগবে, যদি তিনি আমাকে জোর করে জড়িয়ে ধরেন।’

তনুশ্রী বলেন, ‘তিনি আমাকে জড়িয়ে ধরেন। নিজের শরীরের মধ্যে টেনে নেন। তারপর তিনি কোরিয়ারগ্রাফারকে সরে যেতে বলেন এবং তিনিই আমাকে নাচ শেখানোর কথা বলেন। এরপর তিনি আমার সঙ্গে একটি অন্তরঙ্গ দৃশ্য করতে চেয়েছিলেন এবং বিষয়টা ছিল হাস্যকর।’

তিনি বলেন, ‘সবাই জানে নারীরা নানা পাটেকরকে অশ্রদ্ধার চোখে দেখেন। চলচ্চিত্র শিল্পের লোকজন নানা পাটেকারের অতীত সম্বন্ধে জানেন। তিনি অভিনেত্রীদের পিটিয়েছেন, উত্যক্ত করেছেন, নারীদের প্রতি তার ব্যবহার বরাবরই নিষ্ঠুর। কিন্তু পত্র-পত্রিকায় এ ব্যাপারে কখনোই কিছু লেখালেখি হয়নি।’

ভারতে তনুশ্রী দত্তই প্রথম অভিনেত্রী যিনি যৌন হেনস্থা হওয়া নিয়ে কথা বলেছেন। জুম টিভি তাকে নিয়ে মন্তব্য করেছে, ‘যা ঘটেছে তা সবাই দেখেছেন। ব্যক্তিগত হেনস্থা নিয়ে তনুশ্রী দত্ত কথা বলেছেন। তারপর তিনি আর কোথাও নেই।’

এই ঘটনাটি ঘটেছে হর্ন ওকে প্লিজ ছবির সেটে। তারপর তনুশ্রীকে বাদ দিয়ে তার স্থানে নেওয়া হয় রাখী সাওয়ান্তকে। ইমেইজেস

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত