প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আদালতের বক্তব্য লেখায় হুলস্থুল কাণ্ড হয়েছিল : প্রধান বিচারপতি

এস এম নূর মোহাম্মদ : প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, আদালতে আমরা অনেক সময় অনেক কথা বলি। বিদেশে বিচারকরা কথা বলেন না। যেমন ইংল্যান্ডে কোর্ট অব অ্যাপিলেডে গিয়েছি, হাইকোর্টে গিয়েছি। সেখানে আদালতে আমার নিয়মিত উপস্থিতি ছিল। ঐখানে দেখেছি, বিচারকরা কোনো আর্গুমেন্ট করে না, প্রশ্ন করে না। কোনো কিছু জানার (কয়ারি) থাকলে জিজ্ঞাসা করে।

কিন্তু আমরা যেহেতু কথা বলি, অনেক সময় এটা নিয়ে সংবাদপত্রে লেখা হয়। এটা নিয়ে ২/১ বার সাংঘাতিক হুলস্থুল কাণ্ড হয়েছে সারাদেশে। নিশ্চয়ই আপনারা জানেন, আমি কোনটার কথা ইঙ্গিত করেছি। কিন্তু বিচারক অন রেকর্ড কিছু লেখেননি। যা বলেছিলেন, শুধুই মৌখিকভাবে বলেছিলেন। এটা নিয়ে আপনারা হুবহু রিপোর্ট করে দিয়েছেন। তারপরতো তা নিয়ে সারাদেশে তুলকালাম কাণ্ড হয়েছে। বিচারকরা অনেক সময় কথাচ্ছলে বলে ফেলেন। সুতরাং এনিয়ে কতটা রিপোর্ট করবেন সেটা ভেবে দেখা উচিত।

বুধবার সুপ্রিম কোর্টে লিগ্যাল এইড ও আইন সাংবাদিকতা শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন প্রধান বিচারপতি। সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটি ও মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন যৌথভাবে এ কর্মশালার আয়োজন করে। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান বিচারপতি এম.ইনায়েতুর রহীম।

প্রধান বিচারপতি বলেন, সাংবাদিকদেরও দায়িত্ব রয়েছে। কারণ আদালত একটি স্পর্শকাতর জায়গা। এখন মানুষের আকর্ষণ আদালত রিপোর্টিং। আমার মনে হয়, মানুষ যত যত্ন সহকারে কোর্ট রিপোর্টিং পড়ে, অন্য কোনো রিপোর্টিং এত যত্ন নিয়ে পড়ে না। সুতরাং বিচারকরা যেসব কথা বলেন তা নিয়ে লেখার সময় খুব সতর্ক থাকার অনুরোধ করবো।

তিনি বলেন, বিদেশে প্রত্যেক আদালতে সাংবাদিকদের বসার জন্য আলাদা জায়গা থাকে। সুতরাং এখানে আদালত প্রবেশের ক্ষেত্রে যে প্রতিবন্ধকতার কথা আপনারা বলেছেন সেটা আমি দেখবো। ভবিষ্যতে আর যাতে কোনো বাধা-বিপত্তি না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখবো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত