প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মুশফিক ও মিথুন ঝড়ে অনেকদূর এগুলো বাংলাদেশ

এল আর বাদল : দারুণ লড়ছে মুশফিক – মিথুন জুটি। এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচের মতোই সুপার ফোরের শেষ ম্যাচেও ব্যাট হেসেছে এই দু’জনের। তাদের ব্যাটে ভর করে শুরুর ধাক্কাটা সামলেছে বাংলাদেশ। তবে বড় স্কোর গড়ার পথ এখনো বহুদূর।
বুধবার রাত ৮টায় ২০ মিনিটে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দুজনের ব্যাট থেকে এসেছে ১৪৪ রান। যার ভেতর মুশফিক একাই করেছেন হার না মানা ৭৮ রান, আর ৬০ রান করেছেন মিথুন। শেষ পর্যন্ত মিথুন হাসান আলীর বলে কট এন্ড বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন। মুশফিকের সঙ্গে জুটি বেধে ইমরুল কায়েস ব্যাট করছেন।

এর আগে ওপেনিং জুটিতে ভাল সূচনা করতে পারেননি লিটন-সৌম্য সরকার। গোল্ডেন ডাক মারলেন সৌম্য। দীর্ঘ দিন পরে দলে সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। শূন্যরানে ফিরেছেন প্যাভিলিয়নে। আর তার পদাঙ্ক অনুসরণ করলেন এশিয়া কাপে দ্বিতীয়বার দলে সুযোগ পাওয়া মুমিনুল হক। শাহিন শাহ আফ্রিদির আগের বলেই চার মেরেছিলেন। কিন্তু পরের বলেই তার প্যাড ছুঁয়ে স্ট্যাম্পে বল লাগে। ফলে ৪ বলে মাত্র ৫ রান করেই তাকেও ফিরতে হয়েছে। আর এমন শুরুর পর এমনিতেই চাপে পড়ে দল। এরই মাঝে আবার বোল্ড হয়ে গেলেন লিটন দাসও। চলতি এশিয়াকাপে লিটন দাস সবকটি ম্যাচেই ওপেন করেছেন। কিন্তু আফগানিস্তানের বিপক্ষের ৪১ রানের ইনিংসটিই তার ক্যারিয়ার সেরা। এছাড়া বাকি ৪ ম্যাচের একটিতেও দুই অঙ্কের ঘর স্পর্শ করতে পারেননি। ফলে ৪.২ ওভারে মাত্র ১২ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে শুরুতেই চাপে পড়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সেখান থেকেই দলকে টেলে তুলছেন মিথুন ও মুশফিক।

এর আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।
পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচে অংশ নেননি বাংলাদেশের তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তার পরিবর্তে একাদশে জায়গা পান মুমিনুল হক। আঙুলের ফ্রেকচারের কারণে তার খেলা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন মাশরাফি। অপরদিকে দীর্ঘ দিন পর দলে ফিরেন সৌম্য সরকার, বাদ পড়েন নাজমুল শান্ত। আর স্পিনার নাজমুল অপুর পরিবর্তে পেসার হিসেবে অংশ নেন রুবেল হোসেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত