প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঐক্যবদ্ধ থাকলে ক্ষুদ্র দেশও খ্যাতি ও মহত্ব অর্জন করতে পারে: লুকা মদ্রিচ

স্পোর্টস ডেস্ক: বিশ্বকাপ ফুটবলের সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডকে হারানোর পর ক্রোয়েশিয়ার একজন সমর্থককে জিজ্ঞেস করা হয়েছিলো: ফ্রান্সের সাথে ফাইনালের চাপ কীভাবে সামলাবে তার দল?

তার উত্তর ছিল : ‘আপনি লুকা মদ্রিচকে তো চেনেন। তিনি ল্যান্ড মাইনে ভরা মাঠের ভেতর দিয়ে ড্রিবল করতেন। সুতরাং তারও ভয় নেই, আমাদেরও নেই।’

যুদ্ধের শিশু
ক্রোয়েশিয়া জাতীয় দলের অন্য আরো কয়েকজনের মতো লুকা মদ্রিচও যুদ্ধ শিশু।

সোমবার লন্ডনে জমকালো এক অনুষ্ঠানের মধ্যে তিনি ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরষ্কার নিয়েছেন। ১৯৯১ তে যুগোস্কাভিয়াা ভেঙ্গে পড়ার পর বলকান অঞ্চলে যে নির্মম গৃহযুদ্ধ শুরু হয়, সেই ভয়াাল সময় থেকে সোমবারের রাত ছিল যোজন যোজন দূর।

গোষ্ঠী লড়াই এবং সহিংসতার ভেতরে পড়ে তার প্রজন্মের হাজার হাজার শিশুর মত লুকা মদ্রিচের জীবনও অতিষ্ঠ হয়ে পড়ের।

ক্রোয়েশিয়াার বন্দর শহর জাদারের রাস্তায় ফুটবল নিয়ে খেলার সময়, শিশু মদ্রিচকে সতর্ক থাকতে হতো কথন সার্বিয়ান বিমান হামলা চালায়। বিমানের শব্দ পেলে দৌড় পোলাতে হতো।

স্বজন হারানোর শোক
সার্ব মিলিশিয়ারা তাদের বাড়তি পুড়িয়ে দিয়েছিল। তারা পিতামহকে হত্যা করেছিল। অন্য শিশুদের মত তাকেও সবসময় সাবধান করা হতো আশ্রয় কেন্দ্র থেকে যেন সে দূরে না যায়, বোমা বা মাইনের দিকে যেন নজর রাখে।

লুকা মদ্রিচ ক’বছর আগে তার দেশের যুদ্ধ নিয়েছে বলেছিলেন, ‘এসব যখন চলছিলো, তখন আমার বয়স মাত্র ৬। আমার সবকিছু পরিষ্কার মনে আছে। কিন্তু এসব স্মৃতি মনে রাখার মত নয়।’

‘যুদ্ধ আমাকে শক্তিশালী করেছে’
‘যুদ্ধ আমাকে শক্তিশালী করেছে। কিন্তু আমি সারাজীবন এ নিয়ে ভাবতে চাই না, কিন্তু আমি তা একবারে ভুলে যেতেও চাই না।’

মদ্রিচের দেশ ক্রোয়েশিয়া ছোট্ট একটি দেশ। জনসংখ্যা মাত্র ৪১ লাখ। লস এঞ্জেলস শহরের জনসংখ্যার চেয়ে সামান্য বেশি।

১৯৫০ সালে উরুগুয়রে পর, ক্রোয়েশিয়া ছিল ক্ষুদ্রতম দেশ যারা ২০১৮ সালে বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছেছিল।

এর আগে ১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপে এই দল তৃতীয় হয়েছিল। ছোট দেশ হিসাবে এই সাফল্য অসামান্য।

অনেকে বলেন, সংঘর্ষ-পূর্ণ ইতিহাসের জন্যই ক্রোয়েশিয়াার পক্ষে এই সাফল্য অর্জন অনেকটাই সম্ভব হয়েছে।

গেল বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের সাথে সেমিফাইনালের দিন ক্রোয়েশিয়াার সংবাদপত্র ইয়োাতারজি এক সম্পাদকীয়তে দলকে ‘রক্ত, ঘাম, চোখের পানি এবং ঐক্য দিয়ে’ লড়াই করার আহ্বান জানিয়েছিল।

‘ঐক্যবদ্ধ থাকলে ক্ষুদ্র দেশও খ্যাতি ও মহত্ব অর্জন করতে পারে।’

তবে যুদ্ধবিগ্রহের ইতিহাস ক্রোয়েশিয়াার যে জাতীয়তাবাদী চেতনার জন্ম দিয়েছে তা মাঝেমধ্যে কুৎসিত চেহারা নেয়।

বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্যায়ে আর্জেন্টিনাকে ৩-০ গোলে হারানোর পর ড্রেসিং রুমে ক্রোয়েশিয়াার খেলোয়াড়রা যে গান গেয়েছিলেন – তা সেদেশের কট্টর ডানপন্থীরা গায়।

তবে এসব সমালোচনা স্বত্বেও, খেলাধুলোর জগতে তাদের সাফল্য নিয়ে ক্রোয়েশিয়াার খুবই গর্বিত।

সোমবার রাতে লুকা মদ্রিচের বর্ষসেরা ফুটবলারের খেতাব সে গর্ব শতগুণ বাড়িয়ে দেবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত