প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

স্পষ্ট দ্বিমত বৃহত্তর ঐক্য প্রক্রিয়ায়

হ্যাপি আক্তার : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সকল দলের সমান সুযোগ ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই নির্বাচনের দাবিকে কেন্দ্র করে মূলত ঐক্যবদ্ধ হয়েছিল ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর যুক্তফ্রন্ট ও ড. কামাল হোসেনের জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া। বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাওয়ার প্রশ্নে ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে মতবিরোধ দেখা দিয়েছে অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরীসহ ঐক্য প্রক্রিয়ার অংশীদারদের। ড. কামাল বলেছেন শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যেতে তার দলের নীতিগত আপত্তি নেই। আর এই মতের সঙ্গে স্পষ্ট দ্বিমত ঐক্য প্রক্রিয়ায় যুক্ত হতে যাওয়া দলগুলোর।

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার অবস্থান থেকে সরে নিরপেক্ষ আচরণের শর্তে বর্তমান সরকারের অধীন নির্বাচনে যাবার সম্মতির কথা জানান জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার আহ্বায়ক। জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার দুই নেতা, ড. কামাল হোসেন ও ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বক্তব্যেও রয়েছে বিএনপি ও তার সঙ্গী জামায়াতকে নিয়ে দুই নেতার বিভাজনের স্পষ্ট ছাপ।

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন বলেন, আমাদের সব শর্ত মেনে নিলে, নীতিগতভাবে এই সরকারের অধীনে নির্বাচন বিবেচনাযোগ্য হবে বলে আমরা মনে করি। আমাদের সবাইকে বসে সিদ্ধান্ত নিতে হবে এবং একইসঙ্গে মূল্যায়ন করতে হবে যে, এই সরকার নিরপেক্ষতার মাপকাঠিতে গ্রহণযোগ্য কীনা।

তিনি বলেন, বিএনপি তো বলেছে তারা জামায়াত থেকে সরে এসেছে। জামায়াতের কিন্তু দলও নেই এখন। জামায়াতের সদস্যদের সাথে বিএনপি’র হয় তো সম্পর্ক আছে, তাহলে আওয়ামী লীগেও কয়জন আছে সে খবরও নেয়া দরকার।

তবে, দাবি থেকে সরে আসার কোনো সুযোগ নেই বলে জানান যুক্তফ্রন্ট চেয়ারম্যান ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, নির্বাচনকালীন একটি নিরপেক্ষ সরকার থাকবে। অন্য কোনো সরকার থাকার কোনো সুযোগ নেই। ড. কামাল হোসেনের বক্তব্য নিয়ে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। বিবিসিতে এমন কোনো বক্তব্য তিনি দেননি সেটা পত্রিকাতেও আছে।

তিনি বলেন, যার যা বক্তব্য সেটা প্রকাশের পূর্ণ অধিকার সবার রয়েছে, এটা আমি বিশ্বাস করি। কেউ কিছু বলতে পারবে না এমন তো নয়। আমাদের স্বাক্ষরিত কাগজের উপরই আস্থা বেশী থাকবে।

বিএনপি’র জোটে থাকা বিষয়ে বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘বিএনপি জীবনে কি তিনশ আসন পেয়েছে? একমাত্র প্রেসিডেন্ট জিয়ার সময় তারা দুইশর কাছাকাছি আসন পেয়েছিল। এরপর জীবনে কখনও তারা একশ ষাটের কাছাকাছি আসতে পারেনি। একশ চল্লিশ সিটেও তো তারা হেরেছে। তাহলে এত বাহাদুরির তো কিছু নাই। আমরা তাদের ব্যাপারে আগ্রহী। সব শর্ত মেনে যদি তারা আসে তো আমরাও প্রস্তুত।

বৃহত্তর ঐক্যের সাংগঠনিক কাঠামো নির্ধারণ করতে বি চৌধুরীর বাসায় ডাকা বৈঠকেও অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে যোগ দেননি ড. কামাল হোসেন। সূত্র : ডিবিসি নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত